Quantcast
Ads by Techtunes - tAds

ফাইবার মার্কেটপ্লেসে সফল হবার ১০ টি কার্যকরী টিপস।

0 টিউমেন্টস 437 দেখা প্রিয়

নতুন হিসেবে আপনার এমন অনেক স্কিলই রয়েছে যা দিয়ে আজই আপনি ক্রিয়েট করতে পারেন একটি গিগ এবং শুরু করতে পারেন আপনার অনলাইন ক্যারিয়ার। আজ আপনাদের সাথে এমনই কিছু টিপস শেয়ার করব যা ফাইবার মার্কেটপ্লেসে সফল হতে কিছুটা হলেও কাজে দিবে।

যাদের পড়তে বিরক্ত লাগে তারা চাইলে ভিডিও টি দেখে নিতে পারেন।

১. ফাইবার কিংবা অনলাইন মার্কেটপ্লেস এ কাজ করার পূর্ব শর্তই হচ্ছে আপনাকে যে কোন একটি বিষয়য়ে ভাল দক্ষতা থাকতে হবে। আমি ধরে নিচ্ছি আপনারও এমন কিছু না কিছু বিষয় রয়েছে যে কাছে আপনি অনেক দক্ষ এবং অনেকের থেকেই ভাল করেন। সুতরাই সেই কাজটি দিয়েই কিয়েট করতে পারেন আপনার প্রথম গিগ। বিষয়টি আরো একটু সহযে বোঝার জন্য ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ ভিজিট করুন এবং ক্যাটাগরিতে গিয়ে দেখুন সেখানে এমন অনেক কিছুই রয়েছে, এর মধ্যে আপনি যে কাজটি ভাল পারবেন সেটাকেই বেছে নিতে পারেন আপনার পেশা হিসেবে।

২. ফাইবারের একটি রিসার্চ এ দেখা গিয়েছে যে গিগ গুলোতে ভালোমানের ভিডিও থাকে সেগুলো ২০০% বেশি সেল পেয়ে থাকে। তাই, আপনার দক্ষতা এবং বেষ্ট কাজগুলো গুলো দিয়ে একটি সুন্দও ভিডিও বানিয়ে গিগে আপলোড দিতে পারেন।

৩. ডেলিভারি টাইম: অনলাইন এ কাজের ক্ষেত্রে কমিটমেন্ট খুবই ইমপরটেন্ট। সুতরাং গিগ ক্রিয়েট করার সময় এই বিষয়টা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। আপনি যে সার্ভিসটি অফার করছেন যেটা কত দিনের মধ্যে ডেলিভারি দিবেন এবং সঠিক সময়ে ডেলিভারি নিশ্চিত করা আপনার পরবর্তীতে কাজ পেতে এবং গিগ র‌্যাঙ্কিং এর জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ন।

৪. সুন্দর টাইটেল নির্বাচন: একটা সুন্দর গিগ টাইটেল নির্বাচন করুন। যেটা খুজে পেতে সহজ হবে এবং এসইও ফ্রেন্ডলি।

৫. ব্রান্ডিং ইয়োর আইডেন্টিটি: আপনি যে কাজটি করছেন ঠিকই একই কাজ অনলাইনে আরো অনেকেই করছে। সুতরাং বায়ার কেন আপনাকে দিয়ে কাজ করাবে কিংবা আপনি যে বিস্বস্ত এবং ভাল কাজ করবেন এটা বোঝানোটা খুবই গুরুত্বপূর্ন একটি বিষয়। তাই একটি সুন্দর প্রোফাইল পিক নির্বাচন করুন। নিযের সমর্কে অল্প কথার মধ্যে খুব সহজ এবং সুন্দর একটি ডেসক্রিপসন দিন এবং একাউন্ট ক্রিয়েট করার সময় সুন্দর একটি ইউজার নেম নির্বাচন করুন।

৬. ফাইবার অ্যাপ: ক্লায়েন্ট এর মেসেস এর দ্রুত রেসপন্স করা কাজ পাবার ক্ষেত্রে আর একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয়। কিন্তু সব সময় ল্যাপটব কিংবা কম্পিউটারের সামনে থাকাটা সম্ভব হয়ে ওঠেনা। এক্ষেত্রে আপনার স্মাট ফোনের জন্য ফাইবার অ্যাপটি ইন্সটল করে নিন। ওর্ডার ডেলিভারি, বায়ার রিকুয়েস্ট, ক্লায়েন্টএর সাথে কমিউনিকেসন সহ আরো অনেক কিছুই আপনি কন্ট্রোল করতে পারবেন ফাইবার অ্যাপস দিয়ে।

৭. সঠিক মূল্য নির্ধারন: ফাইবার এ সকল কাজের ক্ষেত্রে প্রাথমিক ভাবে $৫ ডলার নির্ধারন করা হয়ে থাকে। কিন্তু আপনার কাজের উপর ডিপেন্ড করে চাইলে $৫ ডলার এর বেশিও মূল্য নিধারন করতে পারেন। এক্ষেত্রে কাজ টি করতে কত সময় লাগবে, কাজটি করতে আপনাকে কতটা পরিশ্রম করতে হবে, কি টাইপের কাজ, এ কাজটি মার্কেট এ অন্যান্য সেলার রা কি রেট এ দিচ্ছে ইত্যাদি বিষয়গুলো বিবেচনা করে আপনি কিছু প্যাকেজ ক্রিয়েট করুন। অথবা আপনার সকল কাজের জন্য একটি প্রাইচ লিষ্ট তৈরি করুন। বায়ার যখন আপনাকে আপানর পারিশ্রকি যানতে চাইবে, আপনি আপনার প্রাইচ লিষ্ট টা সেন্ড করুন অথবা গিগ এর প্যাকেজ চেক করতে বলুন।
৮. প্রোমোট গিগ: ফাইবার এ গিগ ক্রিয়েট করে চুপচাপ বসে থাকলে চলবে না। ফাইবার এর বাইরে বিভিন্ন সোশাল নেটওয়ার্ক গুলোতে নিয়মিত মার্কেটিং করতে হবে। যেমন ফেসবুক, গুগলপ্লাস, টুইটার, লিংকডইন ইত্যাদি। এছাড়া বিভিন্ন পোর্টফোলিও সাইটগুলোতে নিজের বেষ্ট কাজগুলো দিয়ে একটি পোর্টফোলিও তৈরি করতে পারেন।
৯. রিসার্চ: অনলাইনে সফল হবার বিষয় একটি কথা আছে। রিসার্চ ইজ দা কি অফ সাকসেস। সুতরাং ফ্রিল্যান্সিং পেশায় সফল হবার জন্য নিয়মিত রিসার্চ করতে হবে। এজন্য বিভিন্ন ব্লগ ও ফোরাম রয়েছে। চাইলে ফাইবার এর ব্লগ ও ফোরামে জয়েন করতে পারেন। সেখানে অন্য সেলাররা তাদের অভিগ্যতা ও পরামর্শ দিয়ে থাকে। সেখান থেকেও অনেক গুরুত্বপূর্ন তথ্য পেতে পারেন। আর গুগলতো রয়েছেই।

১০. কাজ পাবার পর, কাজটি সঠিকভাবে ডেলিভারি দিন। মনে রাখবেন, প্রথম কাজ এবং প্রথম রিভিওটি আপানার প্রোফাইল এবং অনলাইন ক্যারিয়ার শুরুর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ন। সুতরাং বায়ার সন্তুষ্ট না হওয়া পর্যন্ত তার সন্তুষ্টির জন্য কাজ করে যান। কখনই এমন মনোভাব প্রকাশ করা যাবে না যে আপনি বিরক্ত হচ্ছেন। সর্বপরি বায়ার যদি আপনার কাজে সন্তুষ্ট হয় তাহলে রিকুষ্টে করুন পুনরায় কাজ দেবার জন্য।

টিউনটি ভাল লাগলে টিউমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Ads by Techtunes - tAds
টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

You must be logged in to post a Tumment.