Quantcast
Ads by Techtunes - tAds

ইউটিউব,পর্দার অন্তরালের গল্প। ইউটিউবের আদ্যোপান্ত।

0 টিউমেন্টস 372 দেখা প্রিয়

ইউটিউব(Youtube) হালের সবচেয়ে আলোচিত এবং জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। মূলত ইউটিউব একটি ভিডিও শেয়ারিং সাইট। ইন্টারনেট দুনিয়ায় সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় সাইটগুলোর মধ্যে ইউটিউবের অবস্থান ২য়। ইউটিউবে যারা ভিডিও আপলোড করে তাদের বলা হয় ইউটিউবার।

ইউটিউবের পিতারা

ইউটিউবের জন্মদাতা তিন তরুণ Chad Hurley(চাদ হার্লি), Steve Chen(স্টিভ চেন) এবং Jawed Karim(জাওয়েদ করিম)। এই তিনজনই ইন্টারনেট ব্যাংক পেপাল(Paypal) এ কর্মরত ছিলেন। চাদ হার্লি পেপালে কর্মরত অবস্থায় Indiana University of Pennsylvania তে ডিজাইনে পড়াশোনা করছিলেন আর চেন এবং করিম দুজনেই University of Illinois at Urbana–Champaign থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে পড়াশোনা শেষ করেছিলেন। জাওয়েদ করিম একজন বাংলাদেশি বংশদ্ভূত জার্মান আমেরিকান। ইউটিউবে প্রথম ভিডিওটিও তিনিই আপলোড করেছিলেন।

জন্ম এবং ছেলেবেলা

VideoBlog বা Vlog ধারণার হাত ধরে জন্ম ইউটিউবের। ২০০০ সালেই Vlog এর ধারণা প্রকাশিত হলেও ২০০৪ সালেই প্রথম Video Blogging বা Vloging শুরু হয়। এই ধারণাকেই পুঁজি করে প্রতিষ্ঠা করা হয় ইউটিউব।

২০০৫ সালের ফেব্রুয়ারীতে প্রতিষ্ঠিত ইউটিউব মূলত ছিল একটি অনলাইন ডেটিং সাইট (Online Dating Site)। যেখানে সিঙ্গেলরা নিজেদের সম্পর্কে ভিডিও আপলোড করতে পারত, রোমান্টিক তথ্যসহ ভিডিও আপলোড করে সিঙ্গেল তরুন-তরুনী একে অপরের সাথে পরিচিত হবার জন্য ইউটিউবকে ব্যবহার করত।

প্রথমদিকে কিন্তু এই ভিডিও আপলোডের ফিচারও ছিল না। গতানুগতিক ডেটিং সাইট হিসেবে বেশ কিছুদিন কাজ চালিয়ে যাবার পর ২৩শে এপ্রিল ২০০৫ এ ভিডিও আপলোডের ফিচার চালু করা হয় এবং ঐদিনই প্রথম ভিডিও আপলোড করা হয়। পরবর্তীতে ২০০৫ সালের জুনে ইউটিউব একটি পরিপূর্ণ ভিডিও শেয়ারিং সাইট হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে।

ইউটিউবের http://www.youtube.com ডোমেইন, ইউটিউবের লোগো এবং ট্রেডমার্ক রেজিস্টার করা হয় ২০০৫ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন ডে এর দিন। যেহেতু ইউটিউব প্রথম প্রকাশিত হয় ডেটিং সাইট হিসেবে কার্যক্রম পরিচালিত করার জন্য তাই ভ্যালেন্টাইন ডে তে শুরু করাই ছিল সবচেয়ে যুক্তিযুক্ত।

চেহারা-সুরত

অতি আদরের সন্তানের মতই ইউটিউবের চেহারা-সুরত নিয়ে এর পিতাদের চিন্তার শেষ ছিল না। সৌভাগ্যবশত চাদ হার্লি নিজেই একজন ডিজাইনার ছিলেন। এবং ইউটিউবের লোগো তিনিই ডিজাইন করেন। এখন আমরা ইউটিউবের যে লোগো দেখি সেটা কিন্তু সবসময় এক ছিল না। ২০১৫ সাল থেকে ইউটিউবের এই লোগোটি চলে আসছে। মূল থিম একই থাকলেও ছোট ছোট কিছু পরিবর্তিত অনেকগুলো লোগো আমরা দেখেছি। ইউটিউবের লোগোর মূল থিম কালো রঙে লেখা You এবং লাল রঙের বক্সের ভেতর সাদা রঙে লেখা Tube।

শৈশবকাল

ডেটিং সাইট হিসেবে যাত্রা শুরু করার পর যেদিন ভিডিও আপলোড করার ফিচার যোগ করা হল সেদিনই প্রথম ইউটিউব ভিডিওটিও আপলোড করা হয়।২৩শে এপ্রিল ২০০৫ এ 'Me At The Zoo' নামের মাত্র ১৮সেকেন্ডের সেই ভিডিওটি আপলোড করেন ইউটিউবের সহপ্রতিষ্ঠাতা জাওয়েদ করিম। এই টিউন লেখা পর্যন্ত ভিডিওটি ৪কোটি ৮লাখ ৩৯ হাজার ৩৮২ বার দেখা হয়েছে।

২০০৫ এরই জুনে 'শুধুমাত্র ভিডিও শেয়ারিং' সাইট হিসেবে আত্মপ্রকাশের পর ইউটিউবকে কখনই পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ইউটিউবের প্রথম নিজস্ব অফিস ছিল একটা গ্যারেজে। ২০০৫ সালের ডিসেম্বরে  Sequoia Capital নামের একটি প্রতিষ্ঠান ইউটিউবে ৩৫ লাখ টাকা ইনভেস্ট করে। এ সময় পেপ্যালের আরেক কর্মকর্তা যিনি কিনা একই সাথে  Sequoia Capital এর একজন পার্টনার ছিলেন তিনি ইউটিউবে যোগ দেন।

২০০৬ এর এপ্রিলের দিকে Sequoia and Artis Capital Management ইউটিউবে আরো ৮০লাখ টাকা ইনভেস্ট করে। সেই সময় ইউটিউবে প্রতিদিন প্রায় ৬৫হাজার ভিডিও টিউন হচ্ছিল। জুলাইয়ে প্রতিদিন প্রায় ১০০মিলিয়নেরও বেশি ভিডিও ভিউ হচ্ছিল। এ সময় ইন্টারনেট দুনিয়ার সবচেয়ে দ্রুত জনপ্রিয়তা এবং ব্যবহারকারী অর্জনে ইউটিউব প্রথম সারিতে ছিল। এ সময় এলেক্সা র‍্যাংকে ইউটিউবের স্থান ছিল পঞ্চম। প্রতিদিনকার ভিজিটর ছিল প্রায় ২কোটির মত।  ২০০৬ এর জুনে ইউটিউব NBC এর সাথে Marketing and Advertising Partnership এ আবদ্ধ হয়।

পূর্ণবয়স্ক ইউটিউব

শৈশবের পরেই কেউ পূর্নবয়স্ক হয়ে যায় না, কিন্তু ইউটিউবের ক্ষেত্রে এটাই হয়েছে। আর এই আশ্চর্যের পেছনের মূল ক্রেডিট টেক জায়ান্ট গুগলের। ৯ই অক্টোবর ২০০৬ এ অফিসিয়ালি গুগল কর্তৃক ইউটিউবকে কিনে নেয়ার কনফারমেশন আসে। ১৬৫ কোটি টাকায় প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগল ইউটিউবকে কিনে নেয়। তখনকার সময়ে টাকার পরিমাণে এটা ছিল গুগলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কোন কিছু কেনা। নভেম্বর ১৩, ২০০৬ এ গুগল কিনে নেয় ইউটিউবকে। সে সময় ইউটিউবের ৬৭ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী ছিল। গুগলের সাথে বিক্রয়ের চুক্তি অনুযায়ী স্বত্রন্ত্রভাবে ইউটিউব গুগলের অধীনে কাজ করতে পেরেছিল তাদের পুরনো এমপ্লয়ীদের নিয়েই।

এরপর শুধুই সফলতার গল্প:

২০০৭ সাল থেকেই Youtube Awards দেয়া শুরু হয়। ইউটিউব কমিউনিটিতে ভোটের মাধ্যমে ইউটিউবে থাকা সেরা ভিডিও নির্বাচন করে এই পুরষ্কারটি দেয়া হয়। ২০০৭ এর ২৩ জুলাই এবং ২৮ নভেম্বরে ইউটিউব এবং সিএনএন একত্রে আমেরিকের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য প্রশ্ন তৈরী করে এবং সেটা ইউটিউবের মাধ্যমে প্রকাশ করে।

২০০৮ এ ইউটিউব  MGMLions Gate Entertainment এবং CBS এর মত কোম্পানীগুলোর সাথে চুক্তি করে ইউটিউবে বিভিন্ন পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা, টেলিভিশন প্রোগ্রাম এবং এ ধরণের প্রোগ্রামগুলি ইউটিউবে প্রচার করার জন্য।

  • ২০১০ এর মার্চে ইউটিউব ফ্রি স্ট্রিমিং শুরু করে। এর আওতায় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ(আইপিএল) এর ৬০টি ম্যাচ সারাবিশ্বে বিনামূল্যে সম্প্রচার করে। ইন্টারনেট ইতিহাসে এটিই ছিল প্রথম বর ধরণের কোন ফ্রি লাইভ স্ট্রিমিং।
  • ২০১২ এর এক রিপোর্ট থেকে জানা যায় প্রতি এক মিনিটে ইউটিউবে প্রায় ৬০ ঘন্টার ভিডিও আপলোড করা হয়।
  • ২০১২ সালের ৪ ডিসেম্বর ইউটিউব রিলঞ্চ করা হয় ডেস্কটপ ভার্সনের মতই একই রকম মোবাইল এবং অ্যাপ ভার্সন সম্বলিত।
  • ২৫ অক্টোবর ২০১২ তে ইউটিউবের শ্লোগান 'Brodcast Yourself' বাদ দেয়া হয়।
  • ২০১৩ তে ইউটিউবের এক মাসের ভিউ ১০০ কোটি ছাড়িয়ে যায়।
  • বর্তমান ইন্টারনেট দুনিয়ায় গুগল এবং ফেসবুকের পরে ইউটিউবই সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট।

ইউটিউবকে অনেকে সার্চ ইঞ্জিন হিসেবেও দেখেন। মূলত ভিডিও শেয়ারিং সাইট হলেও ইউটিউব একই সাথে একটি ভিডিও সার্চ ইঞ্জিনও। এবং এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভিডিও সার্চ ইঞ্জিন, যদিও শুধুমাত্র ইউটিউবে থাকা ভিডিওই সার্চ করে খুঁজে বের করতে পারে এটি।

ইউটিউবের আইডিয়া মূলত চাদ হার্লির(Chad Hurley)।

ইউটিউবের প্রথম ১০০ কোটিবার দেখা ভিডিও হল গ্যাংনাম স্ট্যাইল(Gangnam Style), ২০১২ সালের ২১শে ডিসেম্বর ১০০কোটির ঘর স্পর্শ করে এই ভিডিও। তো ইউটিউব নিয়ে এই ছিল আজকের টিউনে। টিউনটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। টিউমেন্ট করতে ভুলবেন না। জানাতে পারেন আপনার যেকোন মতামত।

Ads by Techtunes - tAds
টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

You must be logged in to post a Tumment.