Quantcast
Ads by Techtunes - tAds

কখনো কি ভেবে দেখেছেন, ডিলিট করা ফাইলগুলো কোথায় যায় ?

9 টিউমেন্টস 1,461 দেখা প্রিয়

প্রায় ২ মাস পরে টেকটিউনসে আবার টিউন লিখতে বসলাম। আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজকের টিউনের টপিকটি একটু ভিন্ন। আমরা প্রায় প্রত্যেকদিন কিছু ফাইলস ডিলিট করে থাকি আমাদের পিসি বা ল্যাপটপ বা স্মার্টফোন থেকে। যেসব ফাইলের প্রয়োজন শেষ হয়ে যায়, সেসব ফাইল আমরা ডিলিট করে দেই স্টোরেজ বাঁচানোর জন্য।

কিন্তু ফাইল ডিলিট করার পরেই কি ফাইলের অস্তিত্ব শেষ হয়ে যায় ? আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন যে কয়েকদিন আগে আপনি যে মুভিটি হার্ড ড্রাইভ থেকে ডিলিট করলেন বা আপনার স্মার্টফোনে তোলা যে ছবিটি ভাল হয়নি বলে সাথে সাথে ডিলিট করে দিলেন, সেগুলো ডিলিট হওয়ার পরে কোথায় গেল ?

এই বিষয়টিকে বুঝতে হলে আমাদেরকে প্রথমে কম্পিউটারের বাইরে বেরিয়ে চিন্তা করতে হবে। বাস্তব জীবনে কি আমরা কোনকিছু ডিলিট করতে পারি ? চিন্তা করুন তো। ধরা যাক, আপনার কাছে একটি কাগজের একটি পৃষ্ঠা আছে। আপনি কি চেষ্টা করলেই এটাকে ডিলিট করতে পারবেন ? অনেকে বলতে পারেন যে কাগজটি আপনি ছিঁড়ে টুকরো টুকরো করে ফেলবেন বা অনেকে এটাও বলতে পারেন যে কাগজটি আপনি আগুনে পুড়িয়ে ছাই করে ফেলবে। কিন্তু ভেবে দেখুন তো, এটি কি সত্যিই ডিলিট হল ? সত্যিই কি এটার অস্তিত্ব মুছে গেল ?

আপনি যদি বলেন হ্যাঁ, তাহলে আপনি ভুল। আপনি শুধুমাত্র কাগজটির রূপ বা অবস্থার পরিবর্তন করেছেন। আগে এটি কাগজ ছিল কিন্তু পুড়িয়ে ফেলার পরে সেটি পরিবর্তিত হয়ে হল ছাই। ছিড়ে ফেললে কাগজের কোন ধরনের পরিবর্তনই হল না। শুধুমাত্র এটির অনেকগুলো টুকরোতে পরিবর্তিত হল। পানিতে ভেজালে সেটা ভেজা কাগজে পরিনত হল। কিন্তু আপনি কিছুতেই কাগজটি সম্পূর্ণভাবে উধাও করে দিতে বা ডিলিট করে দিতে পারবেন না। কম্পিউটারের ডিলিট করা ফাইলগুলোর ক্ষেত্রে বিষয়টা এমন না হলেও বাস্তব জীবনের সাথে কিছুটা মিল থেকেই যায় যদিও কম্পিউটারের ফাইল টেকনিক্যালি ডিলিট করা সম্ভব।

ডেক্সটপ বা ল্যাপটপে ফাইল ডিলিট করার প্রক্রিয়াটি শুরু হয় যখন আপনি ফাইলটির কনটেক্স মেনু থেকে ডিলিট অপশনটি ক্লিক করে কনফার্ম করে ফাইলটিকে Recycle Bin ফোল্ডারে পাঠিয়ে দেন। তখনও ফইলটি আপনার ড্রাইভে একটি টেম্পোরারি ডিরেক্টরিতে থেকেই যায় এবং আপনার ড্রাইভের স্পেস দখল করে কিন্তু ফাইলটি উইন্ডোজ আপনাকে দেখায় না। কিন্তু তখনও ড্রাইভ প্রোপার্টিস চেক করলে আপনি দেখবেন যে আগে ড্রাইভে যতটুকু স্পেস খালি ছিল ঠিক ততটুকুই খালি আছে। অর্থাৎ ফাইলটি তখনো সেখানে আছে। এই অবস্থায় আপনি রিসাইকেল বিন থেকে ফাইলটি রিস্টোর করলেই আপনি আবার ফাইলটি দেখতে পারবেন এবং ব্যবহার করতে পারবেন।

কিন্তু কি হয় যখন আপনি রিসাইকেল বিন থেকেও ফাইলটি ডিলিট করে দেন যাতে সেটা আর রিস্টোর করা সম্ভব না হয় ? এসময় কিন্তু আপনাকে ড্রাইভের সেই স্পেসটুকু ফেরত দেওয়া হয় যেটুকু স্পেস ওই ফাইলটি দখল করেছিল। কিন্তু ফাইলটির কি হয় ? কোথায় যায় ফাইলটি ?

Related image

ফাইলটি যখন আপনি রিসাইকেল বিন থেকেও ডিলিট করে দেন, আপনার ড্রাইভে ওই ফাইলটি যতটুকু স্পেস দখল করে ছিল টা কিন্তু আক্ষরিক অর্থে খালি হয়ে যায়না। ওই স্পেসটুকু কে খালি হিসেবে মার্ক করা হয়। এই খালি হিসেবে মার্ক করার ফলে ওই স্পেসটুকু নতুন কোন ডেটা বা নতুন কোন ফাইল রাখার জন্য এভেইলেবল হয়ে যায়। ফাইলটি যেখানে ছিল সেই স্পেসটি খালি হয়ে যায় কিন্তু ফাইলটি কিন্তু এখনো কোথাও সরে যায়নি বা ফাইলটির অস্তিত্ব শেষ হয়ে যায়নি। শুধুমাত্র পয়েন্টারগুলো চলে গিয়েছে। পয়েন্টার হলআপনার কম্পিউটারের আরেক ধরনের ডেটা যেগুলো আপনার মেমরিতে থাকা ফাইলগুলোর ডিরেক্টোরি পয়েন্ট করে বা নির্দেশ করে।

ফাইলটি ডিলিট করলে কম্পিউটার শুধুমাত্র আপনার ফাইলের রেফারেন্সগুলো রিমুভ করে দেয়। ফাইলের রেফারেন্স রিমুভ করলে কম্পিউটার ফাইলটিকে আর রিড করতে পারেনা। বিষয়টিকে আরেকটু ভালভাবে বুঝতে হলে বলতে হবে, কোন অপারেটিং সিস্টেম থেকে  কোন ফাইল ডিলিট করা হচ্ছে অনেকটা কোন বই থেকে একটি চ্যাপ্টারেকে খালি হিসেবে মার্ক করার মাধ্যমে চ্যাপ্টারটি ডিলিট করা। কম্পিউটারের ক্ষেত্রেও বিষয়টি এমন। অর্থাৎ, কম্পিউটার যখন আপনার ডিরেক্টরি টি পড়ে, তখন ডিলিট করা ফাইলগুলোর জায়গাটি কম্পিউটার খালি হিসেবে ধরে নেয় যেহেতু সেই জায়গাগুলো খালি হিসেবেই মার্ক করা আছে।

Related image

 

এখন আপনি ভাবতে পারেন যে তাহলে ডিলিট করা ফাইলগুলো সহজেই ফিরিয়ে আনা সম্ভব যেহেতু সেগুলো এখনো আছে। ঠিক তাই। সহজেই ঠিক নয়, কিন্তু কঠিনে হলেও ডিলিট করা ফাইল ফিরিয়ে আনা সম্ভব এটা আমরা সবাই জানি। স্পেশাল ডেটা রিকভারি টুলগুলো আপনার পারমিশনের সাহায্যে হার্ড ড্রাইভের ডিরেক্টরি থেকে সেই ধরনের স্পেসগুলোকে খুজে বের করে যেগুলো খালি বা Empty হিসেবে মার্ক করা আছে। এবং অনেকসময় এই টুলগুলো সেই স্পেস থেকে আপনার ডিলিট করা অধিকাংশ ফাইল খুজে বের করে ফিরিয়েও আনতে পারে যেহেতু ফাইলগুলোর স্পেসটি শুধুমাত্র খালি বা Empty হিসেবে মার্ক করা আছে কিন্তু ফাইলটি এখনো কোথাও যায়নি। আপনার ডিলিট করা ফাইলগুলো হার্ড ড্রাইভে ততক্ষন পর্যন্ত থাকবে যতক্ষন না সেই ফাইলটির স্পেসটিকে অন্য কোন নতুন ফাইলের জন্য রিজার্ভ করা হচ্ছে বা যে স্পেসে আপনার ফাইলটি ছিল ওই স্পেসটি নতুন কোন ডেটা বা ফাইল দ্বারা ওভাররাইট করা হচ্ছে।

এখন আপনি প্রশ্ন করতে পারেন যে, শুধুমাত্র ওভাররাইট করলেই যদি ফাইলটি চলে যায়, তাহলে কেন কম্পিউটার সেটা প্রথম স্টেপেই করে ফেলে না ? কারন এটা করার থেকে শুধুমাত্র ফাইলের স্পেসটিকে খালি হিসেবে মার্ক করা বা ফাইলটির রেফারেন্স রিমুভ করে দেয়া অনেক বেশি সহজ।

Related image

অর্থাৎ একটি ফাইলকে যদি আপনি সম্পূর্ণভাবে ডিলিট করতে চান যাতে টা আর রিকভার করা সম্ভব না হয়, তাহলে আপনাকে ফাইলের জন্য রিজার্ভ করা যে স্পেসটি ছিল সেটাকে নতুন ডাটা দিয়ে সম্পূর্ণভাবে ওভাররাইট করতে হবে। লো লেভেল ফরম্যাট বা অন্যান্য ইউটিলিটি ব্যবহার করে এটা করা সম্ভব। এসব ইউটিলিটির সাহায্যে হয়ত আপনি ওই ডিলিট করা ফাইলগুলোর স্পেসকে অনেকগুলো ০ দ্বারা ওভাররাইট করবেন বা অন্যকিছু দ্বারা ওভাররাইট করবেন যাতে তা আর কখনোই রিকভার করা সম্ভব না হয় কিন্তু সেক্ষেত্রেও ১০০% নিশ্চয়তা নেই যে আপনার ফাইলটি ডিলিট হয়েছে। এখানে আরেকটি বিষয় চলে আসে যা হল " ব্যাড সেক্টর "। ব্যাড সেক্টর হচ্ছে আপনার কম্পিউটারের এমন কিছু ডিরেক্টরি যেগুলোতে আপনি কখনোই এক্সেস করতে পারবেন না। হতে পারে এসব ডিরেক্টরিতে কিছু চেঞ্জ করলে আপনার পিসি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে যাবে বা অন্য কোন ধরনের ক্ষতি হবে। যাই হোক, এর মানে হচ্ছে এসব ব্যাড সেক্টরে যেসব ফাইল থাকবে সেগুলো কখনোই ডিলিট হবেনা।

ধরা যাক, আপনি ইউএস মিলিটারি বা এমন ধরনের কোন শক্তিশালি গ্রুপের একজন কর্মকর্তা এবং আপনার পিসিতে এই গ্রুপের অনেক প্রয়োজনীয় গোপন ডেটা আছে যেগুলো অন্য কারোর জানার অধিকার নেই। এসব ডাটা যখন আপনার ডিলিট করার দরকার হবে তখন আপনি বা ইউএস মিলিটারি কি করবে ? শুধুমাত্র ডিলিট করে দেবে ? না। যেহেতু ফাইল সম্পূর্ণভাবে ডিলিট করা সম্ভব নয় তাই যাতে কেউ ডিলিট করা ফাইলের এক্সেস কখনো না পেতে পারে, তা নিশ্চিত করার একমাত্র উপায় হচ্ছে আপনার হার্ড ড্রাইভ বা পিসি বা মেমরি বা সিপিইউ সবকিছু ধ্বংস করে ফেলা যাতে কেউ কখনো ডিলিট করা ফাইল তো দুরের কথা, মেমরিটিই এক্সেস না করতে পারে।

Image result for burning hard drive

ইউএস, আফ্রিকা, জাপান ইত্যাদি দেশগুলো অনেকসময়ই এই কাজটি করার জন্য তাদের ইলেকট্রনিক ওয়েস্টগুলো (এমন সব ডাটা যেগুলো তারা চায়না যে রিকভার করার ১% চান্সও থাকুক) ঘানার  Agbogbloshie নামক একটি জায়গায় পাঠায় সেগুলো আগুনে পুড়িয়ে ফেলার জন্য। ঘানার এই জায়গাটি World's Digital Dumping Ground নামে পরিচিত। এখানে এই সব মেমরি বা হার্ডড্রাইভগুলোকে পুড়িয়ে ফেলা হয় যাতে সেগুলো রিকভার করার ১% চান্সও অবশিষ্ট না থাকে। কিন্তু, আপনি জানলে অবাক হবেন যে এখান থেকেও ফাইলগুলোকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। পৃথিবীর বিভিন্ন সাইবার অপরাধী বা অন্যান্য কিছু লোকজন দাবি করে থাকেন যে ঘানার এই ডাম্পিং গ্রাউন্ড থেকে তারা অনেক ডাটা রিকভার করতে পেরেছে। এসব ডাটার মধ্যে তারা মিলিওন ডলারের এগ্রিমেন্ট, বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান ফর্মুলা এবং আরো অনেক কিছু পেয়েছে।

একবার ভেবে দেখুন তো, আপনার আজকের ডিলিট করা একটি ফাইল যদি এখন থেকে ১০০ বছর পরে কেউ খুজে পায় ? আপনার আজকের ডিলিট করা একটি ছবি যদি আরও ১০০০ বছর পরে ফিরিয়ে আনা হয় ? লিক হওয়ার ভয়ে আপনার পিসির আজকের ডিলিট করা ব্রাউজিং হিস্টোরি যদি ৫০ বছর পরে আপনার ছেলে-মেয়ে খুজে পায় ? If you know what I mean. 😉

যাইহোক। আজকের মত আমার টিউনটি এখানেই শেষ করছি। আশা করি টিউনটি আপনাদের ভাল লেগেছে। টিউন সম্পর্কে কোন ধরনের কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই টিউনমেন্ট করে জানাবেন। ভাল থাকবেন।

সোর্স : Vsause (Youtube)

You can find me on : Facebook

Ads by Techtunes - tAds
টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

টিউনটির টাইটেল থেকেও অনেকবেশি পেলাম অভ্যন্তরে!
অসংখ্য ধন্যবাদ!

অনেক সুন্দর টিউন হয়েছে ।
জানতে পেরেছি অনেক অজানা তথ্য ।
টিউনারকে অসংখ্য ধন্যবাদ …………

ভাল টিউন

Good job valo laglo

ager moto asi na ekhane ekhon ar…onek din valo ekta jinis pelam…jodio beparta purota bujhe uthte pari nai…tobuo mostiske atkate parchi!..onek dhonnobad

You must be logged in to post a Tumment.