Quantcast
Ads by Techtunes - tAds

উইন্ডোজ ফোন [পর্ব-৩] :: উইন্ডোজ ফোন কি আপনার নেয়া উচিত? আগে জেনে নিন বাজে কয়েকটি দিক!

50 টিউমেন্টস 11,312 দেখা 34 প্রিয়
এটি 3 পর্বের উইন্ডোজ ফোন চেইন টিউনের 3 তম পর্ব

এই টিউনটি পুরোনো। বর্তমানে Windows Phone 8.1 এ নিচের প্রায় সকল সুবিধা যোগ করা হয়েছে। 

গত টিউনগুলিতে এবং বিভিন্ন জায়গায় উইন্ডোজ ফোন নিয়ে অনেক অভিযোগ পেয়েছি। এটা অবশ্যই অস্বাভাবিক কিছু নয়। অভিযোগ থাকতেই পারে। তবে উইন্ডোজ ফোন কেনার আগে এটির সমন্ধে বিস্তর জানা উচিত। টাকা পেলেন আর কিনে আনলেন তাহলে তো অভিযোগ থাকবেই। সবারই উচিত তাদের নিজস্ব চাহিদা পূরণ করতে পারবেন এমন ফোন কেনা। আপনার বাবাকে যদি আপনি Samsung Gallaxy S4 দেন তাহলে ফোনটির সকল সুবিধা থাকলেও আপনার বাবা সেটির দ্বারা তাঁর চাহিদা পূরণ করতে পারবেন না বা তাঁর কাছে সেটি ঝামেলা মনে হবে। এক্ষেত্রে তাঁর জন্য Nokia 1100 টাই বেটার ! তাই আজকের টিউনের মূল বিষয় উইন্ডোজ ফোন নেয়া আপনার উচিত কিনা।

টিভিতে এবং বিভিন্ন জায়গায় ব্যাপকভাবে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখে অনেকেই উইন্ডোজ ফোন অপারেটিং সিস্টেম সম্বলিত নোকিয়া লুমিয়া কিংবা HTC সহ অনান্য ব্রান্ডের ফোন কিনছেন। উইন্ডোজ ফোন অপারেটিং সিস্টেম সম্বলিত ফোনগুলির তুলনা হয়না। দেখতে যেমন দারুন আকর্ষণীয় ব্যবহার করতেও তেমন মজা। কিন্তু এই মজা সবার জন্য না সবাই এই মজা উপভোগ করতে পারবেন না।

কয়েকটি কারণ যেগুলি উইন্ডোজ ফোন কেনার আগে আপনার জানা উচিতঃ

১) ফাইল ম্যানেজারঃ

অন্যান্য মোবাইল ফোন অপারেটিং সিস্টেমগুলির সাথে তুলনা করলে এটিই উইন্ডোজ ফোনের সবচেয়ে বহুত আলোচিত একটি বিষয়। হ্যা, উইন্ডোজ ফোনে কোন ফাইল ম্যানেজার নেই। এটিই উইন্ডোজ ফোনের সবচেয়ে বাজে একটি ব্যাপার আপনার কাছে মনে হতে পারে। বিশেষ করে যদি আপনি অ্যান্ড্রয়েড থেকে উইন্ডোজ ফোনে আসেন। অনেকেই আছেন যারা তাদের ফোনে ফাইল ম্যানেজার না থাকার কথা ভাবতেই পারেন না। যদিও উইন্ডোজ ফোনে ফাইল ম্যানেজারের কোন প্রয়োজন হয়না। এবং উইন্ডোজ ফোনে ফাইল ম্যানেজার না থাকার সপক্ষে অনেক যুক্তিও রয়েছে।

২) নোটিফিকেশন সেন্টারঃ

নোটিফিকেশন সেন্টারের সাহায্যে মূলত ফোনের বিভিন্ন অ্যাপ কিংবা কমিউনিকেশন এর আপডেট/ষ্ট্যাটাস এক জায়গাতেই পাওয়া যায়। অ্যান্ড্রয়েড, আইফোন, ব্লাকবেরি ইত্যাদিতে নোটিফিকেশন সেন্টার থাকলেও উইন্ডোজ ফোনে এখনও তা অবর্তমান। যদিও উইন্ডোজ ফোনের লাইভ টাইল এর মাধ্যমে নোটিফিকেশন দেখা যাওয়ার কথা কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। তবে নোটিফিকেশন সেন্টার উইন্ডোজ ফোন ৮.১ এ আসতে পারে বলে জানা গেছে।

৩) ভলিউম কন্ট্রোলঃ

উইন্ডোজ ফোনে ভলিউম কন্ট্রোল অল-ইন-ওয়ান। এর ফলে পুরো সিস্টেম এবং অ্যাপ্লিকেশনগুলি একটিমাত্র ভলিউম কন্ট্রোল। অর্থাৎ আপনি গান শোনার সময় অল্প সাউন্ড দিয়ে রাখলেন কিন্তু যখন কল আসবে তখন ওই কম সাউন্ডেই রিংটোন বাজবে। গেম খেলার সময়ও একই ভলিউমে সাউন্ড হবে। ফলে যদি রিংটোন জোরে বাজাতে চান কিংবা গেমের ভলিউম বাড়াতে চান তাহলে আপনাকে আবারও বাটন টিপে ভলিউম বাড়িয়ে নিতে হবে। যদিও অনেকের ক্ষেত্রে এটি একটি সুবিধা কিন্তু আপনার জন্য অসুবিধাও হতে পারে।

৪) প্রফাইলঃ

আশা করি জীবনে এপর্যন্ত যতগুলি ফোন ব্যবহার করেছেন সবগুলিতেই প্রফাইল রয়েছে। অর্থাৎ সবসময়ের জন্য "General", মিটিং এ গেলে "Silent", বাইরে বেরুলে "Outdoor", ঘরের ভিতর থাকলে "Indoor" ইত্যাদি। বর্তমানে উইন্ডোজ ফোনে শুধু ভলিউম বাটন টিপে ফোন ভাইব্রেট করার অপশন রয়েছে। তবে আমার নিজের কখনো এত্তগুলি প্রফাইলের কখনো দরকার হয়নি। ফোন ভাইব্রেট করা গেলেই হল। যদিও একেকজনের চাহিদা একেকরকম।

৫) ব্রাউজারঃ

উইন্ডোজ ফোনে Google Chrome, Firefox ও Opera ব্রাউজার নেই। শুধুমাত্র Internet Explorer 10 এবং UC Browser রয়েছে এছাড়াও আরো কিছু ব্রাউজার রয়েছে তবে আমি শুধু জনপ্রিয় কয়েকটির কথা বললাম। Google Chrome না থাকার ফলে অনেকেই "ব্রাউজার সিংঙ্ক" সুবিধাটি পাবেননা। অর্থাৎ অ্যান্ড্রয়েট বা অন্যান্য ফোনে গুগল ক্রোম থাকার ফলে লগিন করলে সাথে সাথে কম্পিউটারে সেভ করা পাসওয়ার্ড, ব্রাউজিং হিস্টরি, বুকমার্ক ইত্যাদি সব চলে আসে। কিন্তু উইন্ডোজ ফোনে Google Chrome না থাকার ফলে যারা এই সুবিধার আসক্ত তাঁদের সমস্যা হতে পারে।

৬) ভিডিও কলঃ

উইনডোজ ফোন ৮ এর প্রায় প্রত্যেকটি ফোনই ৩জি সাপোর্টেট। তবে থ্রিজি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করলে আপনি এটি দিয়ে সরাসরি ভিডিও কল করতে পারবেন না। অর্থাৎ উইনডোজ ফোন ৮ নেটওয়ার্ক বেসড ভিডিও কল সমর্থন করেনা। তবে আপনি স্কাইপ কিংবা যেকোন থার্ডপার্টি অ্যাপ দিয়ে ভিডিও কল করতে পারবেন। থ্রিজি বাংলাদেশে অলরেডি এসে গেছে তবে আমার মনেহয়না সরাসরি ভিডিও কল মানুষ খুব একটা করে। ভিডিও কলের চার্জ অনেক বেশি এবং ভিডিও কোয়ালিটিও তেমন ভাল নয়। তাই স্কাইপ ব্যবহার করে কল করাই অনেক সাশ্রয়ী। এই সুবিধাটি যদি কারো খুব প্রয়োজন হয় তাহলে উইন্ডোজ ফোন না নেয়াই উচিত।

৭) অ্যাপ স্টোরঃ

উইন্ডোজ ফোনের এটাও একটা আলোচিত দিক। হ্যা আইফোন কিংবা অ্যান্ড্রয়েট এর থেকে তুলনামূলক কম অ্যাপ পাবেন উইন্ডোজ ফোনে। তবে জনপ্রিয় এবং নিত্য প্রয়োজনীয় প্রায় সকল অ্যাপই রয়েছে। বর্তমানে উইন্ডোজ ফোন স্টোরে ১৬০,০০০ এরও বেশি অ্যাপ রয়েছে। আমরা সাধারণত কতগুলি অ্যাপ ব্যবহার করি? ৩০ টা? ৫০ টা? আচ্ছা ধরলাম ১০০ টা?

আপাতত এই কয়েকটি অসুবিধাই আমার সেরা মনে হয়েছে। আসলে সবকিছুই আপনার চাহিদা এবং ব্যবহারের উপর নির্ভর করে। সত্যি বলতে উপরের যে কয়েকটি অসুবিধার কথা বর্ণনা করা হয়েছে অনেকেই কাছেই এগুলি কোন ব্যপারই না আবার অনেকেই কাছে এগুলিই অনেক ব্যাপার।

এই টিউনটি দেখে হয়ত অনেকেই উইন্ডোজ ফোন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিবেন। কিন্তু আমি বলব আসলে আপনি বিরাট মিস করবেন। আমি এই টিউনে শুধু কয়েকটা সনামধন্য অসুবিধা সমন্ধে আলোচনা করেছি কিন্তু উইন্ডোজ ফোনের সুবিধা এবং আকর্ষনীয় ফিচার নিয়ে লিখিনি। পরবর্তী টিউনগুলিতে অবশ্যই লিখব উইন্ডোজ ফোনে সুযোগ সুবিধা নিয়ে।

আমার পরামর্শ হিসেবে আপনি যদি উইন্ডোজ ফোনে সুইচ করতে চান তাহলে অবশ্যই উপরের বিষয়গুলির সাথে "আপাতত" মানিয়ে নিতে পারলেই শুধুমাত্র আসুন। খামখা উইন্ডোজ ফোন কিনে পরে ব্যবহার করতে না পারার অভিযোগে এটিকে দুর্নাম করার মানে দেখিনা। অনেকেই আছেন না বুঝে উইন্ডোজ ফোন কিনে দুইদিন মাথা আচড়িয়ে বিক্রি করার জন্য প্রাণপণ টেস্টা শুরু করেন। বিশেষ করে তাদের জন্যই মূলত এই টিউনটি।

প্রতিটি অপারেটিং সিস্টেম এর নিজস্ব বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এগুলির জন্যই একেকটার সাথে অন্যটার তুলনা হয়না। iPhone আইফোন এর জায়গায়, Android অ্যান্ড্রয়েড এর জায়গায় আর Windows Phone উইন্ডোজ ফোন এর জায়গায়।

এই টিউনটি পুরোনো। বর্তমানে Windows Phone 8.1 এ উপরের প্রায় সকল সুবিধা যোগ করা হয়েছে। 

Ads by Techtunes - tAds
টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

Aitari opekkha korchilam, Thanks! 🙂

Samsung galaxy s4 use kori

vai amar ek fnd er nokia lumia windows model ta amar mone nai amar androide phone e conect hoy na ! windows phone holo ekta khali box sara r kiso na !!!!

    @Saiful71: আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কি কানেক্ট করতে চেয়েছিলেন? উইনডোজ ফোন খালি বক্স না এটা ব্যবহার করতে পারেন না বলেই এরকম মনে হচ্ছে।

      @সাইফুল ইসলাম: vai bluetooth conect korte parinai

nokia lumia 620 kinsilam.pore dekhi vedio call hoi na file maneger ni tamon akta vlo application ni valo gulo tk die kinte hobe…..game gulo kamon jani kartun tipe faltu fon beicca disi akhon samsung s duos use kri.

File manager er prb solve kora jai kivabe? nokia er apps kotha theke namale valo hoi?

    @রিয়াজ: ফাইল ম্যানেজারের আসলে কোন প্রয়োজনই হয়না। অডিও ভিডিও মিউজিক অ্যাপ থেকে ম্যানেজ করা যায়। ছবি ফটো অ্যাপ থেকে, ডকুমেন্ট অফিস অ্যাপ থেকে ইত্যাদি।

    আপনি উইন্ডোজ ফোন স্টোর থেকে অ্যাপ নামাতে পারবেন। http://windowsphone.com/en-us/store

সাইফুল ভাই, কথা হল সব উইন্ডোজ ফোনে কি এই সকল বিষয়গুলো একই ভাবে আছে? নাকি সেটের ভিন্নতানুসারে এই সার্ভিস গুলো /সেটিংস গুলো ভিন্ন ভাবে থাকে?

    @রবিন: আমার লেখাগুলি উইন্ডোজ ফোন ৮ ভিত্তিক। ফলে উইন্ডোজ ফোন ৮ সম্বালিত যেকোন ফোনের এই ব্যাপারগুলি একই।
    উইন্ডোজ ফোন ৭, ৭.৫ কিংবা ৭.৮ এর মধ্যে ভিন্নতা থাকতে পারে।

bhai ami উইন্ডোজ nokia lumia 625 use korce amr kace akdom e balo lage nai. oita 3mas use korar por bokri kore galaxy S 2 kinse abong ami happy android osadaron. উইন্ডোজ atar sathe tolo na e kora jai na. ar android ar valo dik holo apni jemon apps chan peye jabe android use korao sohoj

    @md.faisal: যার কাছে যেটা সহজ মনে হয় তাকে সেটাই ব্যবহার করা উচিত। আমি আগেও এই কথাটি টিউনে বলেছি। আমি নিজেও নোকিয়া লুমিয়া ৬২৫ ব্যবহার করছি। আমার কাছে ভালই লাগে। উইন্ডোজ ফোনে এখনো যেমন খুশি তেমন অ্যাপ পাওয়া না গেলেও নিত্যপ্রয়োজনীয় এবং দরকারী সব অ্যাপই পাওয়া যায়।

    ধন্যবাদ।

আর একটি মেজর সমস্যা হল , ইনকামিং কলে ফোন ভাইব্রেট হয় খুব কম সময়ের জন্য ..যার কারনে ভিরের মাঝে আপনি কলটি মিস করতে পারেন ।

    @babu_fu: হ্যা এই সমস্যাও অনেকজনের জন্য হতে পারে। তবে আমার কখনো সমস্যা হয়নি 😛

Jara IPhone Use Kore Tader Kase Windows Phone Onek Valo Lagbe Cause IOS R Windows Os Pray Same . Ami Nije S3 Use Korsi Amar Kache Temon 1 Ta valo Lage Ni Age Symbian Use Kortam. To Ami Jeta Mone Kori IOS R Windows Phone Use Kora Onek Easy. Ami To Akhon Asha Kortasi Kobe Lumia 1020 Ta Hate Pabo … Shundor Tune Pore Valo Laglo Chalai Jan ………..

    @Babor: দারুন কথা বলেছেন। আসলেই যারা iPhone ব্যবহার করে তাদের কাছে উইন্ডোজ ফোন অনেক ভাল লাগবে। যাদের বেশি ঝামেলা পছন্দ নয়, রিলায়বিলিটি, ম্যাক্সিমাম পারফামেন্স এবং ইজি কোনকিছু প্রয়োজন তাদের জন্য উইন্ডোজ ফোন দারুন চয়েস।

      @সাইফুল ইসলাম: কিছু লোক ফাইল ম্যানেজারকে নিয়ে বহুত বড় কাণ্ড করে। আমি একবার একটা iPad ব্যাবহার করসিলাম। ফাইল ম্যানেজার এর কথা মনেই করি নাই।

ভইরে উইন্ডোজ ফোন কেনার ভূত মাথায় চাপছিল, কিন্তু আপনি যে সমস্যা গুলোর কথা বল্লেন এখনতো দেখছি ঝারফোক লাগবে।

    @Md Mujjammil: হা হা ! ভাই ফোন শুধু ভাল লাগলেই হবেনা। মানুষ স্মর্টফোন নেয় লাইফকে সহজ করার জন্য। কঠিন করার জন্য নয়। তাই আপনার যেই প্লার্টফর্মে বেশি সুবিধা হবে সেটারই ফোন কিনবেন 🙂

      @সাইফুল ইসলাম: Valo Bolchen Vai. Nice Post Thanx.

Bhai anroid anroider jaygay best ar windows windowser jaygay best.Amake abar bolte hosse khichuri pakanor hat theke e jati ke rokkha koro.Ar bhai osadharon tune korar janno thanks.Keep it up.

    @saeedrony: হা হা হা ! ঠিক বলেছেন ভাই ! এই জাতি সবকিছুতেই প্যাচ লাগায় ফেলে 😛

lumia কিনমু !! সাইফুল ভাই … কম দাম but ভালো service পাব। এমন কয়েকটা মডেল দেন। please 🙂

    @নাঈম the handsome: কম দাম অর্থাৎ ১৫ হাজারে নোকিয়া লুমিয়া ৫২০ পাবেন। কম দামে এটাই ভাল উইন্ডোজ ফোনের ভিতরে।

ভাই আমিও লুমিয়া চালাই। আপনার বলা সাউন্ডের সমস্যাটা তো আমার হয়না। আর এন্ড্রয়েডের থেকে উইন্ডোজই ভাল লাগে। উইন্ডোজে এপসের দরকার খুব কম হয় আর চলেও খুব স্মুথ। তবে উইন্ডোজ যে কয়টা বিক্রি হয় তা নকিয়ার জন্যই। স্যামসাং, সিম্ফনিতে দিনে কয়েকবার চার্জ যায়। নকিয়ায় এই সমস্যাটা নাই। আর ফোনের মানও প্রতিদ্বন্দীদের থেকে শতগুন ভাল। নিয়মিত আপডেট দিলে উইন্ডোজ সবথেকে নিরাপদ ফোন। সারাদিন ফোনকে অত্যাচার করা পাবলিকের একমাত্র অপশন নকিয়া। স্যামসাং ফোনের বিজ্ঞাপন, দাম ও কোয়ালিটি লেখে খুব রাগ হয়। আমাদের গরীব দেশের লোকগুলোকেও ওরা ঠকায়।
নাঈম the handsome ভাই, নকিয়া ফোন কিনলে অবশ্যই কিনবেন আপনার চাহিদা বুঝে। ছবির ভক্ত হলে ৬২৫ কিনতে পারেন, এটার স্ক্রীনও কিছুটা বড়। এভারেজ দামের মধ্যে সেরা চাইলে ৯২০ কিনুন। মার্কেটের সেরা ফোন চাইলে আর শখের ফটোগ্রাফার হলে ১০২০ কিনতে পারেন। তবে এটা দিয়ে তার থেকেও বেশি কিছু করা যায়। লুমিয়া ১০২০ একমাত্র ফোন যেটা এবছরের ডিএসএলআর ক্যামেরার শোতে স্থান পেয়েছে। বড় স্ক্রীন ও হাই রেজুলেশনের ভক্ত হলে ১৫২০ কিনতে পারেন। এটার রেজুলেশন ১০৮০i. এছাড়া আছে ৭২০,৮২০। আপনি নকিয়া ষ্টোরে গিয়ে দেখুন। তবে আগে অবশ্যই gsm arena তে গিয়ে যেটা কিনতে চান তার ক্ষমতা দেখে যাবেন

    @Shawon584: সাউন্ডের বিষয়টি হয়ত আপনি লক্ষ্য করেননি। উইনডোজ ফোনের ভলিউম কন্ট্রোল একটাই। আর এটাই সব অ্যাপে মাস্টার ভলিউম হিসেবে কাজ করে। যা ভলিউম দিয়ে রাখবেন সব অ্যাপ ওই ভলিউমেই চলবে।

    হ্যা উইন্ডোজ ফোন অনেক স্মুথ এবং প্রয়োজনীয় প্রায় সকল অ্যাপই পাওয়া যায়। নোকিয়ার ফ্যান আমি অনেক আগেথেকেই। কেন? কারণ এটির চার্জ অন্যান্য যেকোন ব্রান্ডের থেকে অনেক ভাল থাকে এবং এদের ডিজাইন কোয়ালিটির কাছে অন্যান্য ফোনের তুলনা হয়না। আমি সিউর নোকিয়া যদি অ্যান্ড্রয়েট ফোন বানাত তাহলেও তাদের ফোনে ভাল চার্জ থাকত। এই একটা জিনিসই আমার কাছে খুবই ভাল লাগে।

    মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

উইন্ডোজ ফোনে রিদ্মিকের মত বাংলা কিবোর্ড ইউজ করা যায়? কিবোর্ড লেআউট এবং কিবোর্ড লুক চেঞ্জ করা যায়? যেকোন যাইগাই বাংলা লেখা যায়? ব্লুটুথে ফাইল/এপস ট্রান্সফার করা যায়? ইচ্ছামত কাস্টমাইজ করা যায়? 1080p এর mkv,avi,webm,flv ফাইল স্মুথলি প্লে করতে পারে? এক্সটারনাল মাউস, কিবোর্ড, পেন্ড্রাইভ ব্যবহার করা যায়? ফুল ফোন ব্যাকাপ করা যায়? ১ জিবি বা ২ জিবির উপরের সাইজের এইচডি গেম গুলা স্মুথলি চালানো যায়? রুট না করে পেইড গেম/এপস গুলা ফ্রিতে চালানো যায়?

    @Ratul007: উইনডোজ ফোনে রিদ্মিকের মত বাংলা কিবোর্ড ইউজ করা যায়না। কারণ রিদ্মিক এর তৈরীকারণ এখনো এরকম কোন অ্যাপ উইনডোজ ফোনের জন্য তৈরী করেনি। তবে রিদ্মিক কিবোর্ড ছাড়া বেশ কয়েকটি অ্যাপ আছে যেগুলি দিয়ে কোন খানে বাংলা লেখা যায়। কিবোর্ড লেআউট ভাষা অনুযায়ী পরিবর্তন করা যায় তবে কাস্টমাইজ করতে পারবেন না।

    ব্লুটুথ দিয়ে অডিও, ভিডিও, ফটো, ডকুমেন্ট ইত্যাদি ট্রান্সফার করা যায়। 1080p এর সকল ভিডিও স্মুথলি চালাতে পারবেন। তবে এটি ফোন ভেদে নির্ভর করে। যেমন আমার লুমিয়া ৬২৫ এর ১০৮০p এর ভিডিও স্মুথলি চলে এবং এটির ক্যামেরা দিয়ে 1080p তে ভিডিও রেকর্ডও করা যায়।

    উইন্ডোজ ফোনে AVI, WMV, MP4, 3GP ইত্যাদি ফরমেটে ভিডিও গান চালাতে পারবেন বিল্ট-ইন প্লেয়ার দিয়েই। MKV, Webm, FLV ফরমেট প্লে করার জন্য আলাদা অ্যাপ ব্যবহার করতে হবে। উইনডোজ ফোনে OTG সাপোর্ট নেই।

    উইন্ডোজ ফোনে ফুল ব্যাকআপ করা যায়। ১ জিবি ২ জিবি যেকোন গেমই স্মুথলি চলে তবে এরজন্য আপনাকে ভাল কনফিগারেশন এর ফোনটি নিতে হবে। আমার নোকিয়া লুমিয়া ৬২৫ এ ১ জিবির Asphalt 7 : Heat স্মুথলি চলে।

    উইন্ডোজ ফোনে রুট বলতে কোন জিনিস নাই ! উইন্ডোজ ফোন পাইরেসি সমর্থন করেনা তাই পেইড গেম ফ্রিতে চালাতে পারবেন না। কিনে হালাল ভাবে ব্যবহার করতে হবে।

    আপনার খুব বেশি এক্সপেকটেশন থাকলে অবশ্যই অ্যান্ড্রয়েট কিনুন। খামখা উইন্ডোজ ফোন কিনে বদনাম না করাই ভাল।

    ধন্যবাদ।

আরেক্টা প্রশ্ন যেকোন মডেলের উইন্ডোজজ ফোনের এপস কি অন্য যেকোন উইন্ডোজজ ফোনে ইউজ করা যাবে? যদি বলতেন। আমি একটা কিনতে চাই

    @Ratul007: হ্যা ৯০% অ্যাপ যেকোন উইন্ডোজ ফোনে ইউজ করতে পারবেন। কিছু কিছু গেম আছে যেগুলি হাই কনফিগারেশনের ফোনের জন্য।

অতি আগ্রহের সহিত কেনা windows phone ৫ মাস ব্যবহারের পর চরম বিরক্তি নিয়া এক ছোট ভাইয়ের কাছে অল্প দামে বিক্রি করতে হল। প্রথমে যে জিনিস টি আপনার মাথা খারাপ করবে তা হল ডিফল্ট ব্রাউজার
” INTERNET EXPLORER” । নেট একটু স্লো হলে এই ব্রাউজার ইউজ করা খুব বিরক্তিকর।বার বার রিলোড করতে হয়। যাদের আশেপাশে আমার মত নেটওয়ার্ক প্রব্লেম তারা তো বিশাল ঝামেলা পোহাতে হবে। তারপর বাংলা লিখতে ,পড়তে পারবেন না(ফেসবুক, বাংলা ব্লগ ব্রাউজ করা চরম বিরক্তিকর)।জনপ্রিয় মোবাইল ব্রাউজার ব্যবহারের কোন সুযোগ দেয়া হয় নাই যেমন অপেরা মিনি, গুগলক্রম(এর জন্য কিছুদিন আগে ইউরিপীয় ইউনিয়ন গ্রাহকের অভিযোগের দরুন windows কে জরিমানা করে ) যা সাইফুল ভাই ও উল্লেখ করছেন।।ব্লুটূথ এর অসুবিধা ও সাথে আছে , মাস স্টোরেজ মানে পিসি টু ফোনের ফাইল ট্রান্সফারের বিষয় টা আইফোনের মতই সফটওয়্যার দিয়ে করতে হয় । সফটওয়্যার টার নাম হচ্ছে “zune software” ।সফটওয়্যার টা অফলাইন ইন্সস্টল করতে পারবেন না। নেট কানেক্ট থাকতে হবে।আবার outdated ভার্সন হলে নতুন টা নামিয়ে ইন্সটল করে নিতে হবে। জনপ্রিয় গেমগুলো কিনে নিতে হবে।widowsphone এর মার্কেটপ্লেস android বা Iphone এর আপস্টোর এর মত এত Enriched না। সরাসরি কোন মিউজিক ডাঊনলোড করতে পারবেন না । আপসের মাধ্যমে করা যায় তবে বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই কাজ হয়না। video player কোন এপস পাবেন না। video codec এর ক্ষেত্রে mp4, avi,wmv ইউস করতে পারবেন mkv চলবে না,। একি রকম ইউজার ইন্টারফেস দেখতে দেখতে বিরক্তি ধরে যায়। আরও অসুবিধা আছে লিখতে পারতেছি না আর। মোটকথা windows ফোন আমদের দেশের জন্য ব্যবহার উপযোগী ফোন নয়। তবে সাইফুল ভাইয়ের মত টেঁকি ভাইদের জন্য ভিন্ন কথা। আমদের হাতের কাছে এত সুযোগ সুবিধা নিয়া অল্প দামে চায়না ব্রান্ডের ভাল মানের android থাকতে windows কেন?

বিঃ দ্রঃ windows 7.5 mango version এর ব্যবহারের অভিজ্ঞতার উপর লেখা । windows 8-এ নতুন ফিচার যোগ হয়ে থাকলে এই অজ্ঞতার জন্য ক্ষমাপ্রার্থী।

    @kaizerchief: আপনার অভিজ্ঞতা সেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আপনি উইন্ডোজ ফোন নিয়ে যে সমস্যাগুলি উল্লেখ করেছেন। সেগুলির বেশিরভাগই উইন্ডোজ ফোন ৮ এ ফিক্স করা হয়েছে। উইন্ডোজ ফোন ৮ এ বাংলা খুব সুন্দরভাবে পড়া যায়। লেখার জন্যও কয়েকটি অ্যাপ রয়েছে। উইনডোজ ফোনে Internet Explorer 10 দেয়া হলে এবং এটি বেশ ভালই। তবে অলটারনেটিভ হিসেবে UC Browser এবং বেশ কয়েকটি ব্রাউজার আছে।

    পিসি টু ফোন ট্রান্সফারের জন্য উইন্ডোজ ফোনে ৮ এ ZUNE সফটওয়্যার এর প্রয়োজন নেই। এখন সরাসরি এই কাজ করা যায়।

    অ্যাপ ইন্সটলের ব্যাপারটি এখনও একই রকম। তবে এটিই সবচেয়ে ভাল মনে হয়েছে আমার কাছে কারণ এতে ভাইরাস, ম্যালওয়্যার ফোনে ঢুকতে পারবে না এবং পাইরেসি হবে না।

    এখন অ্যাপ স্টোরে বেশ কয়েকটি Video Player রয়েছে যেগুলি দিয়ে প্রায় সকল ফরমেটের ভিডিও প্লে করা যায়।

    উইন্ডোজ ফোনের সাথে iPhone এর অনেক মিল রয়েছে। উইন্ডোজ ফোন এবং iPhone আসলেই বাংলাদেশে ব্যবহারের জন্য ততটা উপযোগী নয়।

    যাদের এক্সপেকটেশন অনেক বেশি তাদের অ্যান্ড্রয়েড নেয়াই উচিত। যাদের বেশি ঝামেলা পছন্দ নয়, রিলায়বিলিটি, ম্যাক্সিমাম পারফামেন্স এবং ইজি কোনকিছু প্রয়োজন তাদের জন্য উইন্ডোজ ফোন দারুন চয়েস।

ডিফল্ট সফটওয়্যারে বাংলা লিখে অন্য যাইগাই টেক্সট কপি পেস্ট না করে সরাসরি যেকোন যাইগাই বাংলা টেক্সট লেখা যায় এমন দু একটা সফটওয়্যারের নাম যদি বলতেন। আমার বন্ধু লুমিয়া ৫২০ ইউজ করে তার জন্য উপকার হবে। আর mkv ফাইল চালাতে পারে এমন একটা এপস এর নাম বলুন। ধন্যবাদ আগের প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য।

    @Ratul007: সরাসরি বাংলা লেখার এখনো কোন অ্যাপ আমি পাইনি। দুঃখিত।

সাইফুল ভাই, আমার একটি নকিয়া লুমিয়া ৬২০ ফোন বাংলা লিখতে ও পড়তে না পারায় ব্যবহার করতে পারছি না, কিভাবে বাংলা ব্যবহার করা যায় একটু বিস্তারিত বলবেন প্লিজ। মেইল: samit.kumkum@gmail.com

    @Samit Kundu: আপনার ফোনটি কোথা থেকে কিনেছেন? দেশে না নাকি বিদেশ থেকে? Microsoft Windows Phone 8 এর সবগুলি ফোনেই বাংলা দেখা যায়। আপনার ফোনে আপনি Microsoft Windows Phone 8 Amber আপডেট করেছেন?

বড় সাইজ এর pdf ফাইল (200/300 MB, বই) পড়ার জন্য কোন device টা সবচে ভাল হবে এবং পাওয়া যাবে, বলবেন প্লিজ।

    @Jalali: ৫১২ র‍্যাম সমৃদ্ধ যেকোন স্মার্টফোনেই 200/300 MB এর যেকোন PDF ওপেন করা যায়।

No Advice??

apner tune er jonno dhonnobad,saiful.LUMIA 720 use korchi…kintu shomoshsha holo PC te jei Ebooks gulo ase aktao porte parchi na..pdf file gulo kivabe porte pari mobile e ?

    @ইরফান: ফোনে Adobe Reader ইন্সটল করেন। স্টোর এ সার্চ করলেই পাবেন।

ভাই Windows Phone 8 কি পরবর্তীতে 8.1 কিংবা কোন আপডেট ভারশন দিলে তা সরাসরি আপডেট করা যাবে?

সাইফুল ভাই নকিয়া ১২৮০০ টাকায় লুমিয়া ৬৩০ রিলিজ করলো।
লুমিয়া ৬২৫ ইউজার হিসেবে এখন আপনার অনুভুতি কি?

    @Rasel: লুমিয়া ৬২৫ এ শুধু র‍্যাম কম। তবে ৬৩০ এর থেকে ৬২৫ এর পারফামেন্স এবং কনফিগারেশন এখনো অনেক ভালো।

      ভাই আমি ফোন টি MICROMAX LUMIA 950, আমি কিছু চরম সমস্যা ফীল করছি প্লী্য আমাকে একটা ফোন দেবেন দয়া করে;; ০১৭৬১-৭৫৮৪৯৮

      Ar jodi phone na dite chan plz janaben apps lock korbo kivabe? kono locker use korle sudhu desktop a icon ta lock hosse kintu all programe dukhle ota click korle lock dekhacche na..
      ar app backup program a click korle backup progrece hosse na..ba amar account a jasse na..plz amk ektu help korun khub joruri..

উইন্ডোজ ফোন আর কম্পিউটার মধ্যে প্রার্থক্য কি?

You must be logged in to post a Tumment.