ADs by Techtunes tAds
ADs by Techtunes tAds

আমি ‘মে দিবস’ বলছি…..একমাত্র আমিই মনে রাখি একটি শ্রমিকের কান্না…’যে দিন আমার ঘরে উনুন জ্বলে না, সেদিন আমার পেট জ্বলে’…

আমিই হলাম সেই হতভাগা 'মে ডে'(1st may)......
১৮৮৬ সালের আগেও ১লা মে ছিল ...কিন্তু তা সাধারণ দিনের মতোই.....
১৮৮৬ সালের আগে শ্রমিক দের অবস্থা কেমন ছিল..??..না কোন প্রশ্ন নয়...কোন জিজ্ঞাসা নয়..তা ইতিহাস...

ADs by Techtunes tAds

আসুন আজ আমি 'মেদিবস' এক জন মানুষের সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি....সেই মানুষটির নাম 'শ্রমিক'

"আমি শ্রমিক বলছি.......১৮৮৬ সালের আগে আমাদের প্রতিদিন কাজ করতে হত দৈনিক ১১থেকে ১৩ ঘন্টা...
আমারা যে মানুষ নামে কোন প্রাণী তা কেও ভাবতো না....তারা পশু ও শ্রমিকে এক ভাবতো.....
ও আমি ভুলে গিয়েছি তাদের সাথে পরিচয় করাতে আমি ভুলেই গেছি....তারা হলেন মহান...তারা আমাদের প্রভু,আর আমরা দাস...তারা বাবু, তারা আমাদের মালিক...........

কিন্তু আমার আর কত দিন তা সহ্য করবো ....আমরা প্রতিবাদ করে এই পাশবিক অত্যাচারের....
আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরে হে মার্কেটে আমারা মিলিত হই মিছিল করে আপনার দিনেই (মে দিবস)...
1

একত্রিত হয়ে আমরা শ্লোগান তুলি 'পুজিবাদী মানুষের কালো হাত ভেঙে দাও গুড়িয়ে দাও'...
দৈনিক ৮ ঘন্টা কাজের দাবি মানতে হবে......মানতে হবে...........
আমরা সমবেত হই আগস্ট স্পীজ নামে এক জন মহান নেতার নেতৃত্বে......
এই একত্রিত সমাবেশকে আমাদের প্রভুরা ভয় পান......এতটাই দৃপ্ত শ্লোগান যে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েন....
অর্তকীতে পুলিস গুলি চালায়...সাথে সাথে ১১ জন আমরা (শ্রমিকেরা)প্রাণ দিই...১৮৮৬ সালের ১লা মে দিনে
অনেকে জেলে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়...বিচারে ৬ জনের ফাঁসি হয়...আগস্ট স্পীজ এরও ফাঁসি হয়...
তিনি তাঁর শেষ কথা বলে গেলে ফাঁসির মঞ্চে.... 'আজ আমাদের এই নি:শব্দতা, তোমাদের আওয়াজ অপেক্ষা অধিক শক্তিশালী হবে'.....
আমি শ্রমিক...মাহান নেতার জন্য একটিই গান গাই....

"ফাঁসির মঞ্চে গেয়ে গেল যারা জীবনের জয়গান
আসি অলক্ষ্যে দাঁড়ায়েছে তারা, দিবে কোন্ বলিদান
আজি পরীক্ষা, জাতির অথবা জাতের করিবে ত্রাণ?"............

এর পর প্রায় তিন বছর কেটে গেছে........
১৮৮৯ সালে ১লা মে, হে মার্কেট বর্বর ভাবে নিহত শ্রমিকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্যারিসে সমাজতন্ত্রী ও শ্রমিক পার্টি ১লা মে দিনটিকে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন...
এর পর থেকেই সারা পৃথিবীতে শ্রমিক স্বাধীনতার ঝড় ওঠে....ধর্মঘটৈর মাধ্যমে মালিকপক্ষকে নতি স্বীকার করানো হয় বহু জয়গায়..
আমরা (শ্রমিকরা)বলে উঠি.. ‘শোকতপ্ত হয়ো না, সংগঠিত হও'.....
বহু রক্তাক্ত পথ অতিক্রম করে....আজ দৈনিক ৮ ঘন্টা কাজের দাবি স্বীকৃত..সপ্তাহে এক দিন ছুটি......
'মে দিবস' আমি (শ্রমিক)আপনাকে ধন্যবাদ জানাই........."

*********************
*********************

ADs by Techtunes tAds

ধন্যবাদ শ্রমিক বন্ধু............কিন্তু আমি (মে দিবস)যদি প্রশ্ন করি সত্যই কি আপনি এখনো স্বাধীন....
আপনাদের মধ্য শিশু শ্রমের পরিমান কত....মহিলা শ্রমিক কতে...কত টাকায় বা আপনার মজুরি...কতক্ষণ একনো কাজ করতে হয়..
না আপনিও সঠিক বলতে পরবেন না....তাহলে আপনি নিজের চোখেই দেখে নিন আপনাদের অবস্থা....
আজকের বিশ্বায়নের যুগেও..........

2
ওই যে শ্রমিক শিশু ওর বয়স কত??..আপনি কি সঠিক বলতে পারবেন.....
ওর এখন মায়ের কোলে খেলা করার কথা...

3

ওর তো এখন... পুতুল পুতুল খেলার কথা.....ও কেন ইট ভাঙে??

4
ও কেন পাথর বয়...............

5

ওর তো এখন স্কুলে যাবার কথা........ও এখানে কেন??
6
আমার কি এটাই কাজ??.............
7
মহিলারাও কেন কঠোর পরিশ্রম করেন.......
এই সব প্রশ্নের একটাই উওর....পেটের জ্বালা....
পেটের জ্বালায় কাঁদতে থাকে.....কাজ করতে করতে...বাবুরা খেতে দেয় না...
8

তাহলে তাদের সরকার কেন দেখে না.........কেন ওদের ভোট দেয়??
ওদের কোন দিন খাবার জোটে তো কোনদিন না..........
নিজেরাই জোগাড় করে উনুনের জ্বালানি.. .
9

কিন্তু ঘরে তো চাল নেই....ভাত খাবে কেমন করে....
তাই..............
'যে দিন ওদের ঘরে উনুন জ্বলে না, সেদিন ওদের পেট জ্বলে'.....পেটে গামছা বেঁধে থাকে খিদের জ্বালায়...
ভাবতে থাকে পরের দিন কাজ পাবোত?.....

"ওরা চিরকাল
টানে দাঁড় , ধরে থাকে হাল ,
ওরা মাঠে মাঠে
বীজ বোনে , পাকা ধান কাটে ।
ওরা কাজ করে
নগরে প্রান্তরে ।
10
.......
শত শত সাম্রাজ্যের ভগ্নশেষ- ' পরে
ওরা কাজ করে ।"

ADs by Techtunes tAds

11
ওরা প্রতিবাদ করে........নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে রাজপথে মিছিল করে.....
নিজেদের অধিকার ছিলিয়ে নিতে.....ছিনিয়ে নিতে হবে নিজেদেরকেই........

আর কেউ এদের মনে রাখে না.........একমাত্র আমি ,মে দিবস এদের মনে রাখি......
চিরদিন মনে রাখব......
.
'মে ডে' হলো অর্ন্তজাতিক শ্রমিক দিবস.............

আজও কতো শ্রমিক বাদুড় ঝোলা ঝুলে কাজে বের হয় পেটের জন্য....কেমন ভাবে..দেখুন তবে...
12
ওরা কি এই ভাবেই জীবন কাটাব....কেউ কি ওদের দেখবেনা......
13
ওরা ওই ট্রেন তৈরী করে........কিন্তু চাপার অধিকার কি আছে? আর চাপলেও এইভাবে চাপতে হয়..জীবনের ঝুকি নিয়ে...
ওরা পশু না জানোয়ার...........মানুষ নয় নিশ্চয়!!!
ওদের মুখে হাসি ফুটবে কবে??...........
15
এই প্রশ্ন আপনাদের কাছে আমি,মে দিবস রেখে গেলাম...............
এই ভয়ঙ্কর গ্রাস থেকে কে ওদের বাঁচাবে....সরকার না বুদ্ধিজীবি আপনারা........

16
ওরা কেন মাথা নত করে থাকবে..............????
17
আমি ,মে দিবস আপনাদের কাছে জবাব চাই............জবাব কি সত্যই আছে???????

ADs by Techtunes tAds
Level New

আমি কলকাতা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 24 টি টিউন ও 535 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

মানুষের চেয়ে বড় কিছু নাই, নহে কিছু মহিয়ান্‌ । নাই দেশ-কাল-পাত্রের ভেদ, অভেদ ধর্মজাতি, সব দেশে সব কালে ঘরে-ঘরে তিনি মানুষের জ্ঞাতি।- ---ফেসবুকে আমি http://www.facebook.com/pages/Kolkata-India/100002338894158 আমার ব্লক http://kolkata12345.blogspot.com/


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

দারুন টিউন
Level 0
vai apni to andoloner uttojona toiri koira dilan
    শ্রমজীবি মানুষের আন্দোলই একমাত্র পথ............ধন্যবাদ আপনাকে
আপনার টিউন বরাবরের মত ভালই হচ্ছে দাদা... ধন্যবাদ এমন সুন্দর লেখা উপহার দেয়ায়...
    হৃদয় আছে ,তাই হৃদয়কে ছুঁয়ে যায়...........
এক কথায় অসাধারন।
জবাব???? - না নেই.........শুধু আছে কান্না...বেদনা...চিন্তা...হাহাকার... আর যন্ত্রণা
    আর আছে সমবেদনা........................ধন্যবাদ আপনাকে
ভাই আমার print এটা কোরে liflet হিশেবে বিলি কোরটে ইছছা কোরটেসে ...
    আপনার ভাবনাকে শ্রদ্ধা জানাই
দেখিনু সেদিন রেলে কুলি বলে এক বাবু-সাব তারে ঠেলে দিল নিচে ফেলে...
    সেদিন আর বেশি দূরে নয়................. শান্তির পতাকা উড়বে আবার...........আবার তার নিজেদের অধিকার কেড়ে নেবে..........
কমেন্ট নাহ করে আর পারলাম নাহ। প্রথমেই সালাম সেই সকল শহীদদের কে যারা নিজেদের প্রাণের মায়া ত্যাগ করেছিল দুনিয়ার সকল শ্রমিকের আগামীর কথা ভেবে। তার পরেই সালাম সকল শ্রমিকদেরকে যারা নিজেদের ঘাম ও শ্রম দিয়ে আমাদের অর্থনীতি কে সচল রাখছে। তার পরেই সালাম তোমাকে কলকাতা এবং তোমার এই পোস্টটিকে...নূতন করে আবার ভাবানোর জন্য। এক কথাতে অনন্য বরাবরের মতই।
    আপনাদের ভালবাসার শক্তিই আমার অনুপ্রেরণা...................ধন্যবাদ আপনাকে
greatest tune
আপনার সময়উপযুগি টিউনগুলি ভালই লাগে। চালিয়ে যান। ভাল লাগল। ধন্যবাদ।
    ধন্যবাদ আপনেকে.................... সামনের জন্য প্রস্তুত হচ্ছি................
আপনার প্রশ্নের জবাব অবশ্যই আছে।আমরা সবাই নিজকে শ্রমিক এর অবস্থান থেকে চিন্তা করতে হবে। আমরা একটু চিন্তা করলে বুঝতে পারব আজ যেই দামি চেয়ারে বসে আছি ,যে দামি খাটে ঘুমাই,বড় বড় অট্রালিকায় থাকি ,সবকিছু ই কিন্তু অন্য জনের অবদান ।এমনকি আমরা আমাদের বেছে থাকার জন্য যে অন্ন গ্রহন করি তাও কিন্তু অন্ন জনের অবদান,যার সাহায্য ছাড়া আমাদের সবকিছু শূন্য।যার শ্রমের বিনিময়ে আমরা এতো সুখ-শান্তি পাচ্ছি,সে মানুষ টি কে ?অবহেলিত- লাঞ্ছিত শ্রমিকটি।সে আমাদের জন্য এতো কিছু করে যাচ্ছে বিনিময়ে কি আমরা তার জন্য অবহেলা- লাঞ্ছনা,র ধিক্কার রেখেছি।সে আমাদের জন্য এতোকিছু করেও কি একটু প্রতিদান পেতে পারে না।একটু ভালবাসা পেতে পারে না?।তারাও যে মানুষ তাদেরও যে বেঁছে থাকার অধিকার আছে। তাদেরও একটু শান্তি পাবার অধিকার আছে।এটা আমাদের কে নিশ্চত করতে হবে।আমাদের একটু মমত্ব-বোধ,একটু ভালবাসাই, একটু সহানুভূতি ই পারে তাদের শত কষ্টের একটু দাবিদার হতে।
    এখানেও প্রশ্ন?.................সবাই কেন আপনার মত হয় না.............. ধন্যবাদ আপনাকে,,,,,,,,,,,,,,,,,,,, ওরাও যেন আশার আলো দেখতে পায়......................
আমাদের দাবির কথা জানানোর জন্য অশেষ ধন্যবাদ।
    সকলের সাথে সকলে আমরা.................ধন্যবাদ
Although, I am new in Tech Tunes. But It's true that the 1st post which you wrote its great !!! Congratulations... Kolkata.
আমাদের অনেক দায়িত্ব......
    সহানুভূতির সাথে সেই দায়িত্ব পালন করতে হবে................
প্রশ্ন একটাই, শ্রমিক আর মে দিবসের মধ্যে এভাবে চিরকুট আদান প্রদান চলবে??? আর পরিবর্তনের কথা যদি উঠলেট হয়তো এনালগ চিরকুটগুলোকে SMS অথবা email বানিয়ে চালিয়ে দেবেন "উনারা"...
    আপনার প্রথম প্রশ্নের উওর............. আপাতত এই ভাবেই চিরকূট আদান প্রদান চলবে............ কারণ শ্রমিক আর মে দিবসের ___ মধ্যে,আগে,পরে কেউ নেই.............................. ওরাই একে অপরকে মনে রাখে ধন্যবাদ............এই ভাবে ভাবার জন্য
প্রশ্ন একটাই, আর কত দিন শ্রমিক আর মে দিবসের মধ্যে এভাবে চিরকুট আদান প্রদান চলবে??? আর পরিবর্তনের কথা যদি উঠলেট হয়তো এনালগ চিরকুটগুলোকে SMS অথবা email বানিয়ে চালিয়ে দেবেন "উনারা"…
    আপনার দ্বিতীয় প্রশ্নের উওর............... বেশী দিন এই ভাবে চলবে না..................তবে কবে আসবে সেই দ্বিতীয় মে ডে ......... আমি নিজেও জানি না................ তৈরী থাকুন আর এক গণ বিপ্লবের জন্য................................................ পৃথীবি জুড়ে সুনামি আসছে............ এই মহা প্রলয়...................মানব সভ্যতাকেই না ধ্বংস করে দেয়....................... ================== আর "উনারা"........এই চিরকূটেই দেখতে পাবেন তাদের মৃত্যু পরোয়ানা........... ধন্যবাদ আপনাকে
অসাধারন টিউন। সময়োপযোগী লেখার জন্য অনেক ধন্যবাদ।
ভাই এতো সুন্দর লেখেন কিভাবে?????????????????????????????????????????
    আমি নিজের মতন করেই লিখি...................কখনো কখনো সুন্দর হয়ে যায়............... আপনাদের মন্তব্যই সেই সব টিউনের সৌন্দর্য বর্ধন করে................... ধন্যবাদ আপনাকে................
ভাই সত্যি কথা বলতে কি গরিবের উপর ধনীদের অত্যাচার কোনোদিন কমবে না।
    সেই জন্য বাংলায় প্রবাদ আছে.......... 'জোর যার মুলুক তার' আপনার সাথে সহমত.................আবারও ধন্যবাদ
মানুষের এইরকম দুঃখ কষ্ট দেখলে খুব খারাপ লাগে, তাই সব সময় এগুলো থেকে দুরে থাকার চেষ্টা করি, কারণ নিজে কিছুই করতে পারছিনা, আর দেখলেও নিজেকে মানুষ ভাবতেও কষ্ট লাগে, তাই দুরেই থাকি। আসলে কিছুই করার নাই, যতই আমরা গনতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, একনায়কতন্ত্র যাই বলি না কেন survival is the fittest. যে মাথার বুদ্ধি আর শ্রমকে মিলিত করে কাজে লাগাতে পারে সেই বড় হয়ে যায়, একজন অটোরিক্সা ড্রাইভারকে বলতে শুনছিলাম, "গত ১৫ বছর ধরে এই রকম গাড়ি চালাচ্ছি" অথচ অনেককেই দেখি জীবন পরিবর্তনের দাবীতে প্রতিনিয়ত এক কাজ থেকে অন্য কাজে ছুটে চলছে, ধীরে ধীরে পরিবর্তন ও পাচ্ছে। যদিও কিছুটা অপ্রাসঙ্গিক কথা বলে ফেললাম, কিন্তু বর্তমানে কেউ হাতে তুলে খাওয়ায়না, কখনও খাওয়াবেও না। তাই শ্রমিক কে শুধু শ্রম না মেধাও কাজে লাগাতে হবে। দুঃখিত কিসের থেকে কি বললাম, জানি....(___________)
    আপনার কথা রাখলাম............ (খারাপ হলে মুছে দিয়েন)_________ এই অংশ টুকু মুছে দিলাম................. এবং সেখানে (________) এই অংশ টুকু লিখে দিলাম...................... আপানার কথা ১০০% সহমত.......... খুব ভাল বলেছেন................আপনাকে ধন্যবাদ........
Level 0
অনেক ভালো লাগলো। এই ভালোলাগাটুকু বেঁচে থাক। ধন্যবাদ দাদা! :)
    পৃথিবীতে একমাত্র ভালোলাগা, ভালোবাসাই চিরদিন বেঁচে থাকে.................. আপনাকে ধন্যবাদ................
অনেক দিন পরে কেন জানি চোখে পানি এলো,ভেবেছিলাম আমি পাথর হয়ে গিয়েছি কিন্তু পাথর বয়ে নিয়ে যাওয়া শিশুদের দীর্ঘশ্বাস দেখে যখন চোখ ভারী হয়ে এলো বুঝলাম এখনো রক্ত মাংসের দু পায়ের পশু আমরা,নিজেদের সুখের জন্যে ওদের ব্যাবহার করছি।ভাই আপনার লেখা বরাবরের মতই খুব ভালো লেগেছে,আমি হয়তো কোনদিন-ই কারো জন্যে কিছু করতে পারব না কিন্তু আপনি যা করলেন তার জন্যে আপনাকে সহস্র লক্ষ্য কোটি সালাম।আমার চোখের পানি-ই প্রমাণ করে আপনার মত মানুষের লেখা আর কিছু না হোক অন্তত সহানুভূতি জাগাতে পারে একটি মানুষের হৃদয়ে।বলা তো যায় না হয়তো এই সামান্য সহানুভূতি-ই দেখাতে পারে সুবিধাবঞ্চিত কিছু মানুষকে সঠিক পথ।আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ এই লেখাটার জন্যে।ভালো থাকুন,বেচে থাকুন মানুষের হৃদয়ে,পৃথিবীর সমস্ত সুখ আপনাকে ঘিরে থাকুক আর আপনি যেনো হতে পারেন অবহেলিত মানুষের সুখের কারণ।
    সত্যি কথা বলতে কি আজ, আমি আপনার হৃদয় দিয়ে আর এক মহান হৃদয়কে দেখতে পেলাম.............. আমি চিরদিনই সেই সব অবলা মানুষের প্রতিনিধিত্ব করব.................. আর আপনি এবং আপনাদের সেই শক্তিই আমার অনুপ্রেরণা.................. ধন্যবাদ আপনাকে............... আপনার মন্তব্যের শেষ লাইনটি আমি চিরদিন মনে রাখব..................আবারও ধন্যবাদ....
আপনার লেখাটা ভাল লাগল তাই আমার সাইটে দিলাম http://liberator.com.bd/
খুব ভালো লাগলো, অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। ভাল থাকুন।
    আপনার জন্য শুভেচ্ছা রইল................ভালো থাকুন
Level 0
osadharon................................................
Level 0
aj apnar 2 ta tune porlam. khub bhalo legese. agamikal sobgulo porbo.
    খুব ভাল লাগল আপনার কথা শুনে..................... পড়ে পরে জানাবেন...........আবারও ধন্যবাদ
Level 0
http://www.facebook.com/profile.php?id=100002207992000 eta ki apnar fb id?
    না ওটা আমার ফেসবুক আই ডি নয় http://www.facebook.com/pages/Kolkata-India/100002338894158 এইটা আমার আই ডি................. ধন্যবাদ
Level 0
মেকি ভালোবাসা আর দরদ দেখে হাসি পায়। ছবিতে যে ছবি দেখালে তা তুমি নিজে কয়দিন কোরলে দাদা? একদিন এর জন ন দরদ দেখিয়ে লাভ কি??????????
জটিল হইছে বড় ভাই।
Level 0
“শ্রমিক, শিশু শ্রমিক ও মহিলা শ্রমিক” এদের সম্পর্কে ভাবার সময় এখনকার তথাকথিত শিক্ষিত সমাজ, নেতা নেত্রী, সরকার কারো নেই। ভোটের আগে মনেপরে তাই ঝুড়ি ঝুড়ি মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়, পারে ভাবে “পায়ের জুতো মাথায় তোলা উচিত নয়”। “দুনিয়ার মজদূর এক হও” কথাটি অন্তর থেকে বলতে বা শুনতে আমরা ভয় পাই কারন পাছে আমাদের স্বার্থে আঘাত লাগে। “ওরা (শ্রমিক, শিশু শ্রমিক ও মহিলা শ্রমিক) পেট পুরে খেতে পেলে ঘুমিয়ে পরবে যে”, তাহলে আমাদের ফাইফরমাস খাটবে কে?
    আপনার এই প্রশ্নের উওর সত্যই আমি জানি না...................তবে আর বেশি দিন নেই, তখন মানব সভ্যতা বলে কিছু থাকবে না..............তখন কেউ কারুর কাজ করবে না..........থকাবে না কোন শ্রেণী বৈশম্য... ধন্যবাদ.............চির সত্যকথা বললেন........এই প্রশ্ন সবসময়ের জন্য................ তবু তাদের আর একটু স্বাধীনতার জন্য আমার এই আওয়াজ ........................
Level 0
সত্য আর মিথ্যার দনধ চিরদিন থাকবে। তবে সত্য একদিন উধভাসিত হবেই।
    Level 0
    সোভিয়েত রাশিয়ার মতো শেষ হয়ে যাবে।
    @মম....শ্রমিকের ক্ষেত্রে সত্য আর মিথ্যার দ্বন্দ্ব শেষ........ আজ সত্য উদভাষিত....... এই সত্যকে অস্বীকার আমি করিনা..........ব্যঙ্গ করিনা...........ছবি দেখে অট্টহাস্য করার অধিকার আমার নেই....আমার শিক্ষাগত যোগ্যতা তাদের বিদ্রুপ করতে শেখায় নি.............কিছুই যদি দিতে না পারি...কান্না তো দিতে পারি......বেদনা তো ভাগকরতে পারি .....অবলাদের ভাষা তো দিতে পারি....আমি এখানে এই টুকুই করেছি........ @গগন.........আপনাকে ধন্যবাদ যুক্তি যুক্ত উদাহরণ দেবার জন্য.................
Level 0
কলকাতা ভাই, আমি কিন্তু শ্রমিক এর পক্ষে। আমি প্রাণ খুলে “ইনক্লাব জিন্দাবাদ” বলতে ভালোবাসি। কালমার্ক্স ও অ্যাঙ্গেল্স এবং ম্যাক্সিম গোর্কীর বই পড়তে ভালোবাসি।
    আজ কালমার্ক্স ও অ্যাঙ্গেল্স এবং ম্যাক্সিম গোর্কীরা শুধু মাত্র বইএর ভাষা হয়ে গিয়েছেন..... বাস্তব তাদের সাথে নেই..............তাঁরা বেঁচে থাকলে আজ অত্মহত্যা করতেন...................... ইন্টারনেটের দুনিযায়........ওরা(শ্রমিকেরা)...কি বুঝবে............সত্যিকারের শ্রমিকের ,আমার লেখাটি পড়ার কোন আর্থিক সামর্থ নেই..........এটাই বাস্তব..........অধিকার তো দূরের কথা.............ধন্যবাদ
Level 0
আপনার লেখাটা প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই আমি পড়েছি।এবং এটা ষ্টিকি হওয়ায় খুব ভাল লাগছে।আমি একটা সমস্যায় পড়েছি ।ভুল করে নেট থেকে একটা বিজ্ঞাপন ড়াউনলোড করেছি।এখন এটা ডিলিট করতে পারছিনা। ডিলিট করতে গেলে নিচের এই বক্স আসছে, Error Deleting file or folder Cannot delete (file name):Access is denied make sure the disk is not full or write-protected and that the file is not currently in use. okRead more: http://techtunes.com.bd/download/tune-id/67584/#ixzz1LPetoKwm আপানর জানা থাকলে হেল্প করেন প্লিজ।
    সত্যি বলতে কি আমি বুঝতে পরছিনা............ বিস্তারিত সাহায্য পেতে আপনি সাহায্য বিভাগে পোষ্ট করুন............সাহায্য পাবেন আপনি http://filehippo.com/download_ccleaner/ এই সোফ্টওয়ার ব্যবহার করে দেখতে পারেন....ওখানে বিস্তারিত লেখা আছে.. সাবধানতা:- আপনার পাশওয়াড সহ সমস্ত অব্যবহৃত ফাইল ডিলিট হয়ে যাবে.....দ্রুত হবে আপনার পিসি... আমি কোন রকম দায়ী থাকব না.......উইনডোজের বেসিক সেটিংস চলে আসবে...
অসাধারণ একটি টিউন,অসংখ্য ধন্যবাদ
    আপনাকেও ধন্যবাদ জানাই......................
শ্রমিক ভাইদের জন্য নিজের অজান্তে দুফোঁটা অশ্রু উৎসর্গ করলাম। জানি, এতে কারও পেট ভরবে না বা কারও ভাগ্যও বদলাবে না। কিন্তু বিশ্বাস করুন, এর চেয়ে বেশি কিছুই করার ক্ষমতা আমার নেই। তাই পারলে আমাকে ক্ষমা করেন।