Quantcast
ADs by Techtunes tAds
ADs by Techtunes tAds

আপনি ইন্টারনেটে কি করছেন, গুগল আর ইউটিউব সবকিছুই ট্র্যাক করছে কিভাবে গুগল থেকে লুকাবেন?

টিউন বিভাগ গুগল
প্রকাশিত

ADs by Techtunes tAds

আপনার ভালো লাগুক বা নাই বা লাগুক—কিন্তু গুগল, ইউটিউব, ফেসবুক, বিং আপনাকে সর্বদা ট্র্যাক করেই চলেছে। তাদের সাইটে গিয়ে একটা "ডট" লিখে সার্চ করলেও তারা সেটাকে রেকর্ড করে রাখে। আপনি আলাদা যেকোনো ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন আর ভাববেন, "আর গুগল ট্র্যাক করতে পারবে না" —আপনি সম্পূর্ণই ভুল। আপনি যে আলাদা সাইট গুলো ভিজিট করছেন, তারাও গুগলের অ্যানালিটিক্স সফটওয়্যার ব্যবহার করে।

তাছাড়া আপনার প্রত্যেকটি ওয়েব সার্চ, ভিডিও সার্চ, ইমেজ সার্চ, আপনি কোন সাইটটি ওপেন করলেন, আপনি কোথায় কোথায় বেড়াতে যাচ্ছেন, আপনার সব সময়ের লোকেশন, আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্টের সাথে যা কিছু করছেন সবকিছুকেই তারা ট্র্যাক করছে। আমার কথা বিশ্বাস হচ্ছে না তো? ঠিক আছে, আপনি নিজেই আপনার নাম, ঠিকানা, মোবাইল নাম্বার ইত্যাদি লিখে গুগল সার্চ করে দেখুন, দেখবেন গুগল আপনার চেয়েও আপনাকে বেশি মনে রেখেছে। এই টিউন থেকে জানবো গুগল আসলে আপনার ডিজিটাল লাইফের কি কি ট্র্যাক করছে এবং গুগলের নির্ঘুম চোখ থেকে আপনার পার্সোনাল ডিজিটাল লাইফকে কিভাবে রক্ষা করবেন। তো, শুরু করা যাক…

প্রত্যেকটি ইউটিউব সার্চ রেকর্ড করে রাখা হয়

আপনি অবশ্যই জানেন, ইউটিউব হচ্ছে গুগলের সম্পত্তি। তো গুগল যদি আপনাকে ট্র্যাক করে, তাহলে ইউটিউব কি করবে? ইউটিউব গুগলের আরেকটি ঘোঁচর বলতে পারেন। আপনি ইউটিউবে কোন ভিডিও দেখেছেন, কতক্ষণ দেখেছেন, কি ভিডিওর জন্য সার্চ করেছেন সবকিছু ইউটিউব তার ডাটাবেজে সেভ করে রেখেছে।

আপনার ভিডিও দেখার অভ্যাসের উপর ভিত্তি করেই আপনাকে রেকোমেন্ডেড ভিডিও শো করে। অনেকে বলে, "ভাই ইউটিউব অনেক নোংরা সাইট, শুধু হোম পেজে খারাপ খারাপ ভিডিও এনে রাখে"। ভাই নোংরা আপনি, ইউটিউব নয়, আপনি যেটা আগে সার্চ করেছিলেন, যে টাইপের ভিডিও সচরাচর দেখেন, ইউটিউব হোম পেজে সেগুলোই আপনাকে এনে দেয়।

অনেকে বলবেন, "আরে এতো ভালো কথা" আমি যদি ইউটিউব টেক ভিডিও দেখি, তো ইউটিউব আমাকে পরবর্তীতে আরো অসাধারণ টেক ভিডিও গুলো সাজেস্ট করবে! কিন্তু চিন্তা করে দেখুন, কোন কারণে আপনার উপর পুলিশ বা কোন গোয়েন্দা দল সন্দেহ করলো।

তারা আপনার ইউটিউব একটিভিটি গুলোকে তদন্ত করে দেখতে পারে, ধরুন আপনি সখের বসে এমন কোন ভিডিও দেখেছিলেন যেটাকে এক নজরে দেখলে সন্দেহজনক মনে হতে পারে, তো আপনি তো গেলেন। জানি, অনেকে বলবেন, "আরে ভাই আমার অ্যাকাউন্ট পুলিশ কি করবে? আমি ক্রিমিন্যাল নাকি?" —ভাই আপনি অবশ্যই ক্রিমিন্যাল নয়, কিন্তু যদি কোন ভাবে আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়, আর হ্যাকার আপনার অ্যাকাউন্টকে অপব্যবহার করে, তাহলে কি হবে একটু ভেবে দেখুন।

প্রত্যেকটি গুগল সার্চ রেকর্ড করে রাখা হয়

এটা ভেবে একেবারেই চমকে যাওয়ার মতো কিছু নয়, গুগল প্রত্যেকটি সার্চ করা কী-ওয়ার্ড গুলোকে স্টোর করে রাখে। আর এটা শুধু আপনার ক্ষেত্রে নয়, এই পৃথিবীর প্রত্যেকটি ইউজারের ক্ষেত্রেই গুগল এই কাজটি করে থাকে। গুগল ডাটা সেন্টারের হাজার হাজার ড্রাইভ শুধু আপনার আমার পার্সোনাল ডাটা গুলোকে স্টোর করে রেখেছে। শুধু টেক্সট সার্চ নয় ভাই, আপনি কি ভয়েস সার্চ করছেন সেটাও রয়েছে এদের ডাটাবেজে।

ADs by Techtunes tAds

রেখেছে তো রেখেছে, এতে আপনার কি? আপনার অনেক কিছু, আপনার সার্চ হাবিটের উপর আপনাকে ব্ল্যাক মেইল করা যেতে পারে। আপনার গুগল অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে, হ্যাকার সহজেই আপনার সব সার্চ রেজাল্ট পেয়ে যাবে, মানে সেই তথ্য গুলো পেয়ে যাবে যেগুলো আপনি ইন্টারনেটে প্রত্যেকটি সিঙ্গেল টাইম করেছেন।

গুগল আপনার ফিজিক্যাল লোকেশন রেকর্ড করে রাখে

শুধু ভার্চুয়াল ওয়ার্ডে কোথায় যাচ্ছেন কি করছেন সেটা নয়, আপনার ব্যস্তব লাইফে কোথায় যাচ্ছেন, কোন জায়গায় গেলেন, কোন রেস্টুরেন্টে গেলেন, কোন হোটেলে থাকলেন, গুগল সবকিছুই জানে। যদি আপনি ফোনের লোকেশন সার্ভিসটি অফ করে না রাখেন, তো মনে রাখবেন, গুগলও আপনার পিছে পিছে বেড়াতে চলে যায়। এমনকি গুগল আপনার ডেক্সটপ কম্পিউটারেরও ফিজিক্যাল লোকেশন ট্র্যাক করে। যারা তাদের ফিজিক্যাল লোকেশনকে হাইড রাখতে চান, তাদের জন্য এটা অনেক বড় একটি রিস্ক।

এখানেও আপনার জন্য রিস্ক রয়েছে। কেউ যদি আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে ক্রাইম করে তো আপনার লোকেশন হিস্ট্রি থেকে আপনাকে সহজেই খুঁজে বেড় করা সম্ভব হবে। আপনি হয়তো ভাবছেন, "ভাই, আপনার উদ্ভট সব চিন্তা" —ভাই, এই ডিজিটাল লাইফে যেকোনো সময় যেকোনো কিছু ঘটে যেতে পারে। যেহেতু কোন সিস্টেমই ১০০% হ্যাক প্রুফ নয়, তো আপনার সামান্য অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়া কয় মিনিটের ব্যাপার?

গুগল আপনার সকল ডাটা কাজে লাগিয়ে কোটি টাকা ইনকাম করছে

আপনার সকল ডাটা, আপনার যেকোনো সার্চ রেজাল্ট, আপনার ডিজিটাল লাইফের সবকিছু সংরক্ষিত করার পেছনে গুগলের এটিই সবচাইতে বড় রহস্য; কোটি টাকা ইনকাম করা। আপনার ডাটার উপর ভিত্তি করে আপনাকে অ্যাড শো করানো হয়। আপনি এক্ষুনি কোন জুতার সাইটে যান, আর কোন জুতা না কিনেই সাইটটি কেটে দিন। দেখবেন ঐ জুতার অ্যাড আপনার পিছু লেগে গেছে। আপনি অন্য সাইটে (যে সাইটে গুগল অ্যাড রয়েছে) গেলেও জুতার অ্যাড আসবে, আপনি ইউটিউবে গেলেও জুতার অ্যাড আসবে। আর ঐ অ্যাডভার্টাইজারকে গুগল বেশি বেশি চার্জ করবে, কেনোনা আপনিই সেই টার্গেটেড ব্যক্তি যাকে কোম্পানি অ্যাড দেখাতে চায়।

গুগল ট্র্যাকিং থেকে কিভাবে বাঁচবেন?

প্রথমেই বলে রাখি, গুগলের মতো এতো বিশাল ঘোঁচর থেকে পুরোপুরি নিস্তার পাওয়া সম্ভব নয়। তবে কিছু স্টেপস গ্রহন করার মাধ্যমে, আপনি নিজের ট্র্যাকিং এর মাত্রাকে কমিয়ে ফেলতে পারেন। যাই হোক, কাজের কথায় আসা যাক; আপনি নিশ্চয় জানেন, ২০১৫ থেকে গুগলের একটি নতুন ইউআরএল রয়েছে, https://myaccount.google.com —এখানে আপনি গুগলের সকল সার্ভিসের কন্ট্রোল প্যানেল পেয়ে যাবেন। এবার আপনার অ্যাকাউন্ট দিয়ে লগইন করুন, লগইন করার পরে, এই https://myaccount.google.com/activitycontrols লিঙ্ক এ যান, ব্যাস এখানে Web & App Activity,  Location History,  Device Information,  Voice & Audio Activity,  YouTube Search History,  YouTube Watch History অপশন গুলো দেখতে পাবেন। অপশন গুলোর পাশে একটি অফ অন সুইচ রয়েছে, যেখানে অফ করে দিলে আপনাকে ট্র্যাক করা পজ করা হবে।

কিন্তু একটি বিষয় মাথায় রাখবেন, ট্র্যাকিং পজ করে দেওয়া মানে কিন্তু এই নয়, গুগল আর আপনাকে ট্র্যাকই করবে না। যেকোনো সময় আবার গুগল যেকোনো ট্র্যাকিং করে ফেলতে পারে, আপনাকে নোটিফিকেশন দেওয়ারও প্রয়োজন মনে করবেনা।

#ভিপিএন ব্যবহার করুন

ADs by Techtunes tAds

গুগল আর যেকোনো সার্চ ইঞ্জিন এর ট্র্যাকিং থেকে বাঁচতে আর আপনার পার্সোনাল ডাটা গুলোকে প্রাইভেট রাখতে ভিপিএন এর কোন বিকল্প হয় না। ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা এখন অনেক সস্তা ব্যাপার। আপনি ফ্রিতেও ভিপিএন পেয়ে যাবেন, কিন্তু সেটার আরেক খারাপ দিক রয়েছে।

আমি সাজেস্ট করবো, পেইড ভিপিএন ব্যবহার করতে এবং ভিপিএন ব্যবহার করে সবসময় ইন্টারনেট ব্যবহার করতে। ইন্টারনেটে লুকিয়ে থাকার পাশাপাশি ভিপিএন ব্যবহার করার আরো বহু গুন রয়েছে, আপনারা যদি চান, পরবর্তী একটি টিউন করে সেই গুনাগুন গুলো আলোচনা করা যাবে। ভিপিএন আপনাকে হ্যাক অ্যাটাক থেকেও বাঁচিয়ে দিতে পারে, তো অবশ্যই ব্যবহার করা উচিৎ।


সেটিং থেকে ট্র্যাকিং পজ করে আপনাকে ট্র্যাক প্রুফ বানানো যাবে, এটার কিন্তু কোন নিশ্চয়তা নেই। তবে হ্যাঁ, এতে ট্র্যাকিং কিছু হলেও কমানো সম্ভব। আর ভিপিএন ব্যবহার করার ফলে, হতে পারে আপনার অনলাইন যাত্রাকে আরো সিকিউর আর প্রাইভেট করে তোলা সম্ভব হবে। আপনার যেকোনো প্রশ্ন বা মতামতে আমাকে নিচে টিউমেন্ট করতে পারেন, সাথে আপনার যেকোনো প্রাইভেসি টিপসও টিউমেন্টে শেয়ার করতে পারেন।

ADs by Techtunes tAds

আমি তাহমিদ বোরহান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 12 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 178 টি টিউন ও 689 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 22 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

আমি তাহমিদ বোরহান। টেক নিয়ে সারাদিন পড়ে থাকতে ভালোবাসি। টেকটিউন্স সহ নিজের কিছু টেক ব্লগ লিখি। TecHubs ব্লগ এবং TecHubs TV ইউটিউব চ্যানেল হলো আমার প্যাশন, তাই এখানে কিছু অসাধারণ করারই চেষ্টা করি!


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

আসলে এধনের পোস্ট আমাদের জন্য যুগোউপযোগি । এগিয়ে যান সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ…….।

অনেক ধন্যবাদ।

ধন্যবাদ আপনাকে ।

খুবই সুন্দর মানের পোষ্ট। অবশ্য আমি ভিপিএন ব্যবহার করছি। আচ্ছা Duck Duck Go সার্চের মাধ্যমে যদি কিছু করা হয় তাহলে কি গুগল ট্রাক করতে পারবে??

    ডাক ডাক গো ব্যবহার করলে আপনার সার্চ রেজাল্ট কেউ ট্র্যাক করবে না, কিন্তু আপনি সার্চ করে যে সাইটে যাবেন, সেটাতে যদি গুগল ট্র্যাকিং সফটওয়্যার কোড থাকে তবে গুগল বুঝতে পারবে আপনি কি করছেন সেই সাইটে!