Quantcast

ফ্রিলেন্সিং গাইড ২০১৮ আপডেট [পর্ব-০৩] :: অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে টাকা আয় সাথে একটি পিডিএফ ইবুক ফ্রি

0 টিউমেন্টস
2,249 দেখা
জোসস করেছেন
0 0 0 0
আউটসোর্সিং

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইনে আয় করা মানেই কিন্তু ইবে কিংবা আমাজন মার্কেটপ্লেসের প্রডাক্ট বিক্রয় করে আয় করা নয়। তবে প্রফেশনাল ফ্রিলেন্সিংয়ে আমরা অবশ্যই ইবে ও আমাজনের প্রডাক্টের মার্কেটিং করব। তবে এসব বড় বড় প্রতিষ্ঠানের মার্কেটিং ছাড়াও প্রফেশনাল ভাবে ফ্রিলেন্সিং করার মতো আরো অনেক প্রডাক্ট অনলাইনে অসংখ্য ওয়েবসাইটে পাওয়া যায়। অনেক বড় বড় হোষ্টিং কোম্পানী রয়েছে, গেম বিক্রয় করার প্রতিষ্ঠান রয়েছে, সফটওয়্যার বিক্রয় করার প্রতিষ্ঠান থেকে ওয়েব ডেভলাপিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, লগো ডিজাইন ইত্যাদি বিক্রয় হয় এমন মার্কেটপ্লেসেও অ্যাফিলিয়েট করার সুযোগ আছে। এমনকি এডঅনস, এসইও টুলস ইত্যাদি বিক্রয়ের জন্যও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন। বড় বড় জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেসে কিংবা কোম্পানীর ্ওয়েবসাইটে ভিজিট করলেই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নামে একটি আলাদা অপশনই পাওয়া যায়। প্রতিটি বিক্রয়ের উপর এসব সাইট থেকে আয় করা যায়।

কিন্তু এসব প্রডাক্ট আপনি কিভাবে বিক্রয় করবেন? নতুনরা সমস্যায় পড়েন এখানেই। এজন্য আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নেয়া হবে সব থেকে বুদ্ধিমানের কাজ। বেসিক এইচটিএমএল থীম তৈরি করতে পারলেই হল। আপনি শুরু করে দিতে পারেন। বিক্রয় করার জন্য নিচে আমি কয়েকটি প্রদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করছি।

১। সব থেকে ভালো হয় যদি আপনি আপনার সিলেক্ট করা প্রডাক্টের সাথে মিল রেখে একটি ডোমেইন কিনে সেই ডোমেইনে একটি ল্যান্ডিং পেজ তৈরি করে সেই পেইজকে এসইও করে গুগলের প্রথম পাতায় নিয়ে আসতে পারেন। এই কাজটি করতে পারলে আপনি অসংখ্য পরিমানে সেইল পাবেন। যা আপনি হয়ত ভাবতেই পারবেন না। যদিও এই কাজগুলো করতে অনেক পরিশ্রম করতে হবে।

২। গুগল থেকে নির্দিষ্ট লোকেশনের ইমেল লিস্ট কালেক্ট করে ইমেল মার্কেটিং করুন ডাইরেক্টলী। তবে ইমেইলে এফিলিয়েট লিংক সরাসরি ব্যবহার না করে আপনার ওয়েবসাইটের ল্যান্ডিং পেইজ ব্যবহার করতে পারেন। ইমেল মার্কেটিং করার জন্য প্রফেশনাল সারভার দিয়ে করতে পারেন, নিজে একটি সারভার তৈরি করে করতে পারেন আবার ফ্রি ইমেল সার্ভিস দাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমেও করতে পারেন।

৩। আপনি যে প্রডাক্ট বিক্রয় করতে চান তার সাথে মিল রেখে সোশিয়াল মিডিয়ায় পেইজ বা গ্রুপ খুলুন। সেখানে বিভিন্ন সেবা বিনামূল্যে দিয়ে আপনি একটি পরিচিতি তৈরি করুন। তারপর সেই গ্রুপের মাধ্যমে আপনার প্রডাক্টটি বিক্রয় করতে চেষ্টা করুন।

৪। ভিডিও মার্কেটিং করতে পারেন ইউটোবে। আপনি একটি কোম্পানীর হোষ্টিং কিনে সেটা ব্যবহার করে কতটা ভালো লেগেছে, কিভাবে হোষ্টিং ব্যবহার করেছেন, কোম্পানীর সেবার মান কেমন ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করে ভিডিও মার্কেটিং করুন।

৫। শিক্ষামূলক অথবা ফানি স্লাইডার তৈরি করে ফ্রি স্লাইডার সাবমিট করা যায় এমন সাইটে স্লাইডার পাবলিশ করুন এবং স্লাইডারের শেষে সৈজন্যমূলকভাবে আপনার এফিলিয়েট লিংক ব্যবহার করুন।

অ্যাফিলিয়েট সার্ভিস রয়েছে এমন হোষ্টিং কিছু হোষ্টিং কোম্পানী এবং তাদের কমিশনের পরিমান জানতে পিডিএফ ইবুকটি ডাইরেক্টলী ডাউনলোড দিন এখান থেকে। আরো পরামর্শের প্রয়োজন হলে আমাকে ফেইসবুকে নক করুন। ধন্যবাদ।

My Facebook Id- http://www.facebook.com/obaydul.shipon

টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো