Quantcast
জুম ব্যবহার করে US ক্লায়েন্ট দের থেকে দেশে টাকা আনুন

জুম ব্যবহার করে US ক্লায়েন্ট দের থেকে দেশে টাকা আনুন খুব সহজেই

0 0 0 0 0
0 টিউমেন্টস 242 দেখা প্রিয়
পেপাল

জুম পেমেন্টঃ

বেশ কিছুদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে পেপাল বাংলাদেশে আসবে। পেপাল বাংলাদেশে আসলে আমাদের দেশের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য দেশে বাইরের ক্লায়েন্ট দের থেকে বিল তোলা খুবই সহজ হয়ে যেত কিন্তু এই পেপাল আসবে আসবে করেও আর আসছে না।

কিন্তু তাই বলে কি দেশের ফ্রিল্যান্সার রা বাইরে থেকে পেমেন্ট আনতে পারছে না? অবশ্যই পারছে তবে সেটা অনেক ঝামেলা করেই বলা যায়।তাই আজকে আমি এমন একটি সার্ভিসের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব যা খুবই নির্ভর যোগ্য আর সেটি হলো জুম।

পেপালের বিকল্প জুমঃ

আপনি খুব সহজেই US ক্লায়েন্ট বা কোম্পানী থেকে জুম দিয়ে সহজেই টাকা দেশে আনতে পারবেন। ক্লায়েন্ট তার ব‍্যাংক একাউন্ট, ক্রেডিট কার্ড বা পেপ‍্যাল একাউন্ট দিয়ে জুমে পে করতে পারবে। জুম হল একটি মানি ট্রান্সফার কোম্পানী। এটি পেপ‍্যালের বিকল্প না।

জুম হল পেপ‍্যালেরই একটি কোম্পানী তাই এটা নির্ভাবনায় ব‍্যবহার করা যায়। আপনার ক্লায়েন্ট বা কোম্পানী যদি US এর হয় তাহলে আপনি এটাকে ব‍্যবহার করতে পারবেন। অন‍্যান‍্য মানি ট্রান্সফার যেমন ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন, রিয়া এর চাইতে জুম দিয়ে সহজে এবং দ্রুত টাকা আনা যায়। ১০০০ ডলার আনতে হলে মাত্র ৫ ডলার ফি দিলেই চলে।

তবে US এর বাইরের ক্লায়েন্টরা জুম দিয়ে পেমেন্ট করতে পারেন না বলে সেটা ব‍্যবহার না করাই ভালো।

জুম দিয়ে টাকা আনতে হলে আপনি প্রথমেই ক্লায়েন্টের সাথে যোগাযোগ করে নিবেন যে জুম দিয়ে সে পেমেন্ট করতে পারবে কিনা। পেমেন্ট করতে পারলে আপনি দুই ভাবে দেশে পেমেন্ট আনতে পারবেন।

জুম পেমেন্ট ধরনঃ

১। ক‍্যাশ পিকআপ
২। সরাসরি ব‍্যাংক একাউন্টে।

জুম ব্যবহারঃ

ক‍্যাশ পিকআপ এখনও সব ব‍্যাংকে ওভাবে চালু হয়নি তাই আমি সরাসরি টাকা ব‍্যাংকে আনাটাই প্রেফার করবো। টাকা আপনি দুই ভাবে রিকোয়েস্ট করতে পারবেন। xoom.com/request এ গিয়ে ক্লায়েন্টের ই-মেইল এবং আপনার ব‍্যাংক একাউন্ট ইনফো দিয়ে রিকোয়েস্ট করতে পারেন অথবা ক্লায়েন্টকে আপনার ব‍্যাংক একাউন্ট/আপনার ঠিকানা দিয়ে xoom.com এ গিয়ে পেমেন্ট পাঠাতে বলবেন। তবে নিজে করাটাই ভালো। কারন ক্লায়েন্টের এত সময় নাও থাকতে পারে।

আপনি রিকোয়েস্ট করলেই ক্লায়েন্টের কাছে মেইল যাবে। তারপর টাকা পাঠালে আপনি এমন একটি মেইল পাবেন

জুম ব্যবহার করে US ক্লায়েন্ট দের থেকে দেশে টাকা আনুন

 

এরপর আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে। আপনি চাইলে লিংকে ক্লিক করে ট্রানজেকশন প্রসেস দেখতে পারেন। এক বা দুই দিন পরে আবার এরকম একটি মেইল পাবেন।

জুম ব্যবহার করে US ক্লায়েন্ট দের থেকে দেশে টাকা আনুন

এর মানে হল টাকা বাংলাদেশে চলে এসেছে। এখন এই টাকা আপনার ব‍্যাংকে রিচার্জ হতে আরও ১ বিজনেস ডে লাগতে পারে। একদিন পর দেখবেন আপনার একাউন্টে টাকা চলে এসেছে।

জুম ব‍্যবহার করে ব্রাক ব‍্যাংকে আমি ক্লায়েন্ট টাকা পাঠানোর ১৮ ঘন্টার মধ‍্যেই পাই। এমনকি সরকারী ব‍্যাংক যেমন সোনালী, কৃষি ব‍্যাংকেও টাকা আসে।

শেষ কথাঃ

আমি আশা করছি এই সার্ভিস টা আপনাদের ভালো লাগবে। আপনার আরো কোন জিজ্ঞাসা থাকলে টিউমেন্ট করুন এবং ভিজিট করুন এখানে।

আপনি আপনার পরিচিত ফ্রিল্যান্সারদের সাথে এই টিউন টি শেয়ার করুন।

সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।

আমি মেহেদী হাসান, আমি ওয়েব ডেভেলপার হিশেবে কাজ করছি বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে। শখের বশে ব্লগ আর্টিকেল লিখি। আর্টিকেল রাইটার হিশেবে আমার অভিজ্ঞতা প্রায় ৫ বছর। আমার ব্লগ সাইট www.tutsroom.com থেকে আপনারা আমার সম্পর্কে বিস্তারিত সব জানতে পারবেন। টেকটিউনস ব্লগে আমি আপনাদের কে নিয়মিত ভালো কিছু টেকনোলজি লেখা উপহার দিতে পারবো বলে আশা করছি। সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।

টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

You must be logged in to post a Tumment.